মাথায় হাত চীনা সরকারের, চীন থেকে কোম্পানিগুলি সরিয়ে ভারতে আনছে দক্ষিণ কোরিয়া

গোটা বিশ্ব জুড়ে এখন করোনা মহামারী সংকট আর এই করোনা মহামারী সংকট থেকে বেরিয়ে আসার পরেই খুব শীঘ্রই গোটা বিশ্ব আর্থিক সংকটের মুখোমুখি হবে তাতে কোন সন্দেহ নেই।এর পাশাপাশি অনেক নামিদামি সংস্থার দাবি এই মহামারী করোনা ভাইরাসের জেরে বিশ্বের অনেক কোটি কোটি মানুষ ছাঁটাই পড়বেন তাদের কাজ থেকে।তাই এমন এক কঠিন পরিস্থিতিতে বিশ্বের সকল দেশ গুলি নিজের নিজের দেশ গুলিকে বাঁচানোর জন্য মাঠে নেমে পড়েছেন।

তবে এই আর্থিক মন্দার মধ্যেই ভারতের জন্য এক ভালো খবর বেরিয়ে আসছে,প্রকাশিত এক রিপোর্ট অনুযায়ী জানতে পারা যাচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়ার বেশকিছু কোম্পানি তাদের ইউনিটগুলি চীন থেকে সরিয়ে ভারতে প্রতিস্থাপন করতে চলেছে। দক্ষিণ কোরিয়ার কিছু কোম্পানি ভবিষ্যতে চীন ও আমেরিকার মধ্যে যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে তা চিন্তা করেই এরকম এক সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এক্ষেত্রে Hyundai Steel ও POSCO এই দুটি কোম্পানির নাম সামনে বেরিয়ে আসছে যারা তাদের ইউনিটগুলি বর্তমানে চীন থেকে সরিয়ে এনে ভারতের মধ্যে প্রতিস্থাপন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তবে এখন এই বিষয়টি সরকারের সঙ্গে আলোচনা -রত রয়েছে। এই দুটি কোম্পানি তাদের ইউনিট গুলি রয়েছে সেগুলি ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে শিফট করার জন্য বিশেষ আগ্রহ প্রকাশ করেছে। আর এই বিষয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার ডেপুটি কনসাল জেনারেল ইউপ লি জানিয়েছেন যেহেতু এখন মহামারি পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে গোটা বিশ্বে তাই এই সমস্ত প্রক্রিয়াটা সম্পন্ন করতে একটু দেরি হচ্ছে। তিনি জানিয়েছেন আমরা আরো কিছু কোম্পানিগুলি ভারতের স্থানান্তর করার বিষয়ে চিন্তাভাবনা করছি। আর এর আগে জাপানের ও বেশ কিছু কোম্পানি চীনকে পর ঝাটকা দিয়েছে।

এ বিষয়ে জাপান সরকারের এক নির্দেশ অনুযায়ী জানতে পারা গেছে চীনে এই মুহূর্তে জাপানের কিছু কোম্পানিগুলি রয়েছে যা চীন থেকে প্রতিস্থাপনের কাজ শুরু করেছে। আর এর জন্য জাপান সরকার কোম্পানি বা ফ্যাক্টর গুলির জন্য 2.2 বিলিয়ন ডলার আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা করেছে।তবে এই বিষয়ে যে আর্থিক সাহায্য করেছে সেটি সময়ের সাথে সাথে বৃদ্ধি করা হবে এমনটাই জানিয়েছে জাপান সরকার। আর এর পাশাপাশি ইউনাইটেড কিংডম তাদের দেশে 5g টেকনোলজির জন্য চীনের কম্পানি হুয়াবেকে সম্মতি দিয়েছিল তবে এখন সেই বিষয়টি নিয়ে ইউনাইটেড কিংডম পুরোপুরি পাল্টি খেয়েছে।

Related Articles

Back to top button