বিজেপিতে যোগদান করে এবার লোকসভা ভোটে এই এলাকা থেকে প্রার্থী হতে চলেছেন সৌমিত্র খাঁ।

দলের নতুন যোগ দেওয়া হেভিওয়েট সদস্যদের প্রথম শর্ত মেনে এগুলো বিজেপি। বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে 2019 এর লোকসভা নির্বাচনে বিষ্ণুপুরের আসন থেকে প্রার্থী হচ্ছেন সৌমিত্র খাঁ। বুধবার দুপুরে বিজেপির দলীয় পতাকা হাতে তুলে নেন বিষ্ণুপুরের সংসদ সৌমিত্র খাঁ। রং বদল করে সৌমিত্র খাঁ এর ভবিষ্যৎ কি হতে চলেছে তা নিয়ে এখন রাজনৈতিক মহল উৎসুক হয়ে উঠেছে। সৌমিত্র খাঁ বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জন্য দুটি শর্ত দিয়েছিলেন। প্রথম শর্ত হলো, তাকে বিষ্ণুপুরের লোকসভা কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হিসেবে টিকিট দিতে হবে, যা বিজেপির মেনে নিয়েছে।

2019 এর লোকসভা নির্বাচনে বিষ্ণুপুর কেন্দ্র থেকে তিনি প্রার্থী হচ্ছেন এটা প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে। আর দ্বিতীয় শর্তটি হল, বিজেপি যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতির দায়িত্ব ভার দেওয়া। বিজেপির তরফ থেকে নবাগত সৌমিত্র খাঁ কে ওই অঞ্চলে জনসংযোগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ফলে এটা স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে যে 2019 এর লোকসভা নির্বাচনে বিষ্ণুপুরের কেন্দ্র থেকে সৌমিত্র খাঁ দাঁড়াচ্ছেন। শুধুমাত্র এখন আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা বাকি রয়ে গেছে বিজেপির তরফ থেকে। মঙ্গলবার রাত থেকে এই খবর ছড়িয়ে যাওয়ার পর প্রত্যেকটি সংবাদ চ্যানেল শিরোনামে ছিলেন এই সৌমিত্র খাঁ। তাকে খুন করার চক্রান্ত করা হচ্ছে। তার আত্মসহায়ক কে অপহরণ করা হয়েছে। এইসব অভিযোগ করে ফেসবুকে লাইভ করেন বিষ্ণুপুরের সংসদ। আর তারপরে দেখা যায় যে তিনি বুধবার বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন।

তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আক্রমণ করেন সৌমিত্র খাঁ। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার দিন অর্থাৎ বুধবারে বিজেপির সদর দফতরে বসে তিনি অভিযোগ করেন, ” বাংলায় এখন পিসি – ভাইপোর রাজ চলছে। যুবকদের সঙ্গে ছিনিমিনি খেলা হচ্ছে।”সৌমিত্র খাঁ এর এমন মন্তব্যের পর তৃণমূলের যুব কংগ্রেস সভাপতি তথা ডায়মন হারবার এর সাংসদ অভিষেক বন্দোপাধ্যায় সৌমিত্র খাঁ এর বিরুদ্ধে কড়া চ্যালেঞ্জ করে বলেন,” ক্ষমতা থাকলে ভোটে জিতে দেখাক।” অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর চ্যালেঞ্জের পাল্টা জবাব দেন সৌমিত্র খাঁ। তিনি বলেন, ” বিষ্ণুপুরের মানুষ এই ঠিক করবেন কে জিতবেন।” সৌমিত্র খাঁ তার রাজনৈতিক জীবন কংগ্রেসে পা দিয়ে শুরু করেছিলেন।

এরপর তিনি কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন। এরপর তিনি বিধায়ক হন। এরপর তৃণমূল কংগ্রেস তাকে লোকসভার টিকিট দেন। এরপর 2014 সালে বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে প্রথমবারের মতন সাংসদ হন সৌমিত্র খাঁ। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেসে থাকলেও তলায় তলায় বিজেপির সাথে যোগাযোগ রাখছিলেন সৌমিত্র খাঁ এমনটাই খবর। বুধবার তার ফলাফল প্রকাশ পায়। সৌমিত্র খাঁ বুধবার ঘাসফুল শিবির ছেড়ে পদ্ম শিবিরে যোগ দেন।