প্রভাস ও প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে হারিয়ে নতুন রেকর্ড গড়লেন সোনু সুদ

ভারতীয় অভিনেতা সোনু সুদ এশিয়ান সেলিব্রেটিদের প্লানেট অফ 2020 ( Asian celebrity) শীর্ষে নিজের জায়গা করে নিয়েছেন।প্রতিভাবান অভিনেতা করোনা  মহামারীর সময় কঠিন পরিস্থিতিতে মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন ।বিশ্বের 50 জন এশিয়ান সেলিব্রিটিদের মধ্যে তার জায়গা সর্বপ্রথম। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্টার নিউজ পেপারের খবর প্রকাশিত হয়েছে হলিউড-বলিউড টিভি থেকে মিউজিক ইন্ডাস্ট্রি সাহিত্য সমাজ সমস্ত ক্ষেত্রে যে সমস্ত ব্যক্তিত্ব অনুপ্রেরণা দিয়েছেন করণা মহামারীর সময় সেই সকলের মধ্যে সবার প্রথমে ।

 

কোভিড -১৯ মহামারী জুড়ে তাঁর অনুপ্রেরণামূলক জনহিতকর কাজের জন্য তিনি হলিউড, সঙ্গীত শিল্প, টেলিভিশন, সাহিত্য এবং সামাজিক মিডিয়া সহ বিশ্বব্যাপী তারকাদের চেয়ে এগিয়ে ছিলেন।”ইস্টার্ন আই, আমার প্রচেষ্টাকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। প্যানডেমিকে আমি বুঝতে পেরেছিলাম যে আমার দেশবাসীকে সাহায্য করা আমার দায়িত্ব, এটি আমার ভিতর থেকে এসেছে। তারপর আমি মুম্বাইতে এসেছি, একজন ভারতীয় হিসাবে আমার দায়িত্ব যা আমি করেছিলাম। আমি মনে করি মানুষের সমস্ত ভালোবাসা, যা আমি পেয়েছিলাম কেবল তাদেরই ইচ্ছা এবং প্রার্থনা যাদের আমি সহায়তা করেছি।

Advertisements

আমি আমার শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত এই কাজ করব। “সোনু সুদ বলেছিলেন। ২০২০ সালে যারা ভালো কাজ করেছেন, সমাজে পসিটিভিটি ছড়িয়েছেন, আশা দেখিয়েছেন, জনহিতকর কাজ করেছেন বা কেবল নিজস্ব অনন্য উপায়ে অনুপ্রেরণা জাগিয়েছেন, তাদের স্বীকৃতি দিল ইস্টার্ন আই৷

Advertisements

 

 

ইস্টার্ন আই এন্টারটেইনমেন্ট সম্পাদক আসজাদ নাজির জানিয়েছেন, যে সোনু সুদের চেয়ে লকডাউনে আর কোনও সেলিব্রিটি অন্যকে সাহায্য করার জন্য এত কিছু করেনি এবং বলেছিলেন, লকডাউনে আটকা পড়া দরিদ্র পরিযায়ী শ্রমিকদের দেশে ফিরে যাওয়ার জন্য যা করেছেন তা তুলনা হয় না৷ শুধু পরিযায়ী শ্রমিক নয়, সার্জারির জন্য অর্থ প্রদান করা, খাবার দান করা, বৃত্তি প্রতিষ্ঠা করা, নারীর অধিকারের জন্য প্রচার চালানো বা কোনও কৃষকের জন্য নতুন ট্র্যাক্টর কেনা যাতে তার মেয়েরা পড়াশোনা করতে পারে, মাঠ চাষ করতে যেতে না হয়, অগণিত উপায়ে তিনি মানুষকে সহায়তা করেছিলেন। তিনি দ্য জিন হার্শল্ট হিউম্যানিটেরিয়ান পুরষ্কারের যোগ্য।

 

প্রকাশিত আইসিসি-র ODI র‍্যাঙ্কিং তালিকা, শীর্ষে উঠে এল বিরাট, রোহিত সহ অন্যান্য ক্রিকেটারদের নাম…

 

কানাডিয়ান ইউটিউবার, সোশ্যাল মিডিয়া তারকা, কৌতুক অভিনেতা এবং টিভি ব্যক্তিত্ব লিলি সিং তার পথনির্দেশক যাত্রা, অসাধারণ আউটপুট এবং শ্রোতাদের যখন প্রয়োজন হয়েছিল তখন পাশে থাকায় দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছেন৷ ব্রিটিশ পপ সুপারস্টার চার্লি এক্সসিএক্স তার মাস্টারপিস মারকারি মিউজিকের জন্য মনোনীত হয়েছেন৷ ব্রিটিশ অভিনেতা দেব প্যাটেল চতুর্থ হয়েছেন ‘দ্য পারসোনাল হিস্ট্রি অফ ডেভিড কপারফিল্ড ‘ এবং ‘দ্য গ্রিন নাইট’ এর জন্য৷

Armaan Malik: I take pride in being a pan-India singer: Armaan Malik | Telugu Movie News - Times of India
ভারতীয় গায়ক আরমান মালিক পঞ্চম স্থানে তাঁর গানের জন্য যেখানে তিনি ভাষাগত বাধাকে ভেঙে দিয়েছেন৷ ষষ্ঠ স্থানে রয়েছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। শীর্ষ দশের বাকি ১০ জন হলেন সবচেয়ে বড় প্যান-ইন্ডিয়ান তারকা প্রভাস (৭) , হলিউড পাওয়ার প্লেয়ার মিন্দি কালিং (৮), শীর্ষস্থানীয় ভারতীয় টিভি তারকা সুরভী চন্দনা (৯) এবং পাকিস্তানের বংশোদ্ভূত হলিউডের হেভিওয়েট কুমিল নানজিয়ানী (১০ )। তালিকার কনিষ্ঠতম হলেন 18 বছর বয়সী কানাডিয়ান নবাগত নায়ক মৈত্রেয়ী রামকৃষ্ণান (22), যিনি নেটফ্লিক্স সিরিজ ‘নেভার হ্যাভ আই আই এভার’ তে অভিনয় করেছিলেন। প্রবীণ হলেন বলিউডের কিংবদন্তি কিংবদন্তি অমিতাভ বচ্চন (২০), যিনি আবারও চলচ্চিত্র ও টিভিতে দুর্দান্ত কাজ করেছিলেন, করোনা মহামারীতে সাহায্য করেছিলেন, কোভিড -১৯-কে হারিয়ে আবার কাজে ফিরেছেন

PRIYANKA (@priyankachopra) | Twitter

 

IMDb-র সেরা ভারতীয় ওয়েব সিরিজ হিসাবে নির্বাচিত হল Scam-1992

 

সর্বাধিক স্থান প্রাপ্ত লেখক হলেন বুকার পুরস্কার-মনোনীত অবনী দোশি (৩১)।
সর্বোচ্চ স্থান প্রাপ্ত পাকিস্তানি হলেন সরওয়াত গিলানি (২১) এবং সর্বোচ্চ স্থান প্রাপ্ত বাংলাদেশী হলেন দেশের প্রথম কমিক আইকন এবং সোশ্যাল মিডিয়া প্রভাবক রাবা খান ( ২৭)।
তালিকার অন্যরা হলেন- আয়ুষ্মান খুরানা (১১), জেরাল্ডাইন বিশ্বনাথন (১৩), দিলজিৎ দোসন্ধ (১৪), শেহনাজ গিল (১৬), জমিলা জামিল (১৮), পঙ্কজ ত্রিপাঠি (২৩), অসীম রিয়াজ (২৫), মাসাবা গুপ্ত ( ৩২), সালোনি গৌড় (৩)), স্টিল বাংলেজ (৩)), ধবানী ভানুশালী (৪২), Vমান ভেলানী (৪৪), হেলি শাহ (৪)) এবং আনুশকা শঙ্কর (৫০)। 11 ডিসেম্বর ইস্টার্ন আই পত্রিকায় পুরো তালিকা প্রকাশ করা হবে।