ট্রেনে ধূমপান! আসছে কড়া নিয়ম, পাশাপাশি ট্রেনে ফোন ও ল্যাপটপ চার্জ নিয়েও আসছে নতুন নিয়ম

ধূমপান হল এমন একটা জিনিস যেটা ছাড়া মানুষ সামান্য একটু সময়ও ব্যয় করতে পারে না। তাই আমরা অনেক সময় দেখি চলন্ত ট্রেনের মধ্যে অনেক যাত্রীদের দরজার সামনে এসে ধূমপান করতে। অনেকে আবার ট্রেনের বাথরুমে গিয়েও ধূমপান করেন। রাত্রে বেলায় ট্রেনে সফর করার সময় অনেকেই ফোনে চার্জ দিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। এই সমস্ত ঘটনাবলি রেল কর্তৃপক্ষের নজরে আসায় এবার এইসব নিয়ে বড় ধরনের পদক্ষেপ নিতে চলেছে রেল দপ্তর।

 

গত ১৩ মার্চ দিল্লি-দেরাদুন শতব্দী এক্সপ্রেসটিতে আগুন লেগে যায়। উত্তরাখণ্ডের কানসারাওয়ের কাছে ভয়াবহ আগুনের সঞ্চার ঘটে ওই ট্রেনটি মধ্যে। এরপর থেকেই যাত্রীদের সুরক্ষার দিকে রেল কর্তৃপক্ষ বিশেষ নজর দিয়েছে। চলন্ত ট্রেনে ধূমপান বা রাত্রে বেলায় ফোনে চার্জ দেওয়ার মতো ঘটনাগুলিকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

রাত্রে ট্রেনের চার্জিং পয়েন্টে ফোন চার্জ দেওয়ার জন্য অন্যান্য যাত্রীরা সমস্যায় পড়েন। আর এই অভিযোগ প্রায়ই শুনতে হয় টিটিদের। এই সমস্যার সমাধানের জন্য রেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন যে ট্রেনের যাত্রীরা রাত্রি ১১ টা থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত ট্রেনের চার্জিং পয়েন্ট ব্যবহার করতে পারবেন না। ওই সময় ট্রেনের চার্জিং পয়েন্টের সুইচ বন্ধ করে রাখা হবে।

এর পাশাপাশি ধূমপান নিয়েও বড় ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। ট্রেনে যে সমস্ত যাত্রীকে ধূমপান করতে দেখা যাবে তাদেরকে ১০০ টাকা ফাইন করা হবে।

প্রায়ই টিকিট পর্যবেক্ষকদের কাছে অভিযোগ আছে আসেছে যাত্রীরা রাত্রে ফোনে চার্জ দিয়ে ঘুমিয়ে পড়েছেন। এবার এই সমস্ত বিষয় নিয়ে বড় ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করল রেল কর্তৃপক্ষ।