চিন্তায় রাতের ঘুম উড়লো চীন-পাকিস্তানের, এবার ভারতীয় সেনাবাহিনীতে শামিল হতে চলেছে বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ানক এয়ার ডিফেন্স

আস্তে আস্তে যত দিন এগোচ্ছে ধীরে ধীরে বেড়ে উঠছে ভারতীয় সেনাবাহিনীর ক্ষমতা একটু একটু করে। ভারত নিজেকে শক্তিশালী করছে কখনও স্থলপথে আর্মি হোক, কিংবা কখনও জলপথের নেভি, আবার কখনও সেটা আকাশ পথের হতে পারে বায়ু সেনা, নিজের ক্ষমতা মজবুত ও শক্তিশালী করার জন্য একটার পর একটা শক্তিশালী অস্ত্র হয় ভারত কিনছে রাশিয়া, ফ্রান্স, আমেরিকা এর থেকে, আবার কখনো আবার নিজেই প্রস্তুত করছে ভারত DRDO এর সাহায্যে। এখন এই সময়ে ভারত এর হাত এ যা ক্ষমতা আছে, সেই সাহায্যে নিয়ে অনেকগুলো শক্তিশালী অস্ত্র ভারত নিজেই নিজের দেশের মাটিতে বসে তৈরি করতে সক্ষম হচ্ছে সেনাদের জন্য আর এর কৃতিত্ব পুরোপুরি ভারতীয় সংস্থা DRDO (ডিফেন্স রিসার্চ ডেভলপমেন্ট অর্গানাইজেশন) এর।

ঠিক এই রকম ভাবে ভারতীয় বায়ু সেনা বাহিনী কে আরো শক্তিশালী করে তোলার জন্য এবার বিমান বাহিনী তে যুক্ত হতে চলেছে এস-৪০০ অ্যাডভান্সড এয়ার ডিফেন্স মিসাইল সিস্টেমের। ভারতীয় বায়ু সেনার চিফ মার্শাল মিস্টার বিবেক রাম চৌধুরি এই মিশাইল কে ভারতীয় বায়ু সেনা বাহিনী তে যুক্ত করার ঘোষণা ও করে দিয়েছেন। যেই কারণে আরও কয়েকগুণ শক্তিশালী হয়ে উঠতে পাবে ভারতের বায়ু সেনা বাহিনী। সীমান্ত রক্ষার ক্ষেত্রে শত্রু দেশ আক্রমণ করলে দেওয়া যাবে উপযুক্ত জবাব।

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে প্রায় সব বড়ো বড়ো দেশগুলো তাঁদের দরকারী এবং সীমান্ত এলাকা গুলোতে এই শক্তিশালী অস্ত্র এস-৪০০ কে রেডি করে রেখেছে। রাশিয়া এর মতো দেশও নিজের কিছু স্পর্শকাতর সীমান্ত এলাকা গুলো তে তাদের এই অস্ত্র লাগিয়ে রেখেছে। এমন কি চীন দেশ ও রাশিয়া এর কাছে থেকে এই অস্ত্র কিনে রেখেছে।

Advertisements

গোটা বিশ্বের জন্য এই মুহূর্তে সব থেকে উন্নত মানের এয়ার ডিফেন্স সিস্টেমের মধ্যে বিশ্বসেরা সিস্টেম হল এই এস-৪০০। এই সিস্টেম নিজের এলাকা থেকে প্রায় ১০০০ কিমি দূর থেকেও এই শক্তিশালী অস্ত্র যুদ্ধ বিমান, বোমারু বিমান ও মিসাইল ট্র্যাক গুলি কে আক্রমণ করতে সক্ষম। এর সাথে ৪০০ কিমি দূরে থাকা কোনো বস্তু যেমন ট্যাংক শত্রুর সেনা ও যুদ্ধ বিমানের উপরও আক্রমণ করতে সক্ষম এই অস্ত্র।

Advertisements

এই অস্ত্র প্রায় ১০০ লক্ষ্য কে একবারে আক্রমণ করার ক্ষমতা রাখে। এই মিসাইলের মধ্যে থাকা সুপারসনিক এবং হাইপারসনিক মারণ অস্ত্র এর সাহায্যে ৪০০ কিমি দূরত্বে থাকা যেকোনো শত্রু এবং ৩০ কিমি উচ্চতায় থাকা যেকোনো টার্গেটে কে আঘাত করতে পারে এই মিসাইল। এই মিসাইল ৪০০ কিমি দূরে অবস্থিত ৩৬ টার্গেট কে একবারে আক্রমণ করতে সক্ষম।

রাশিয়া এক সময় যখন ইউএসএসআর-এর অন্তর্ভুক্ত ছিল, সেই সময় ১৯৬৭ সালে এস-২০০ মিসাইল তৈরি করা হয়েছিল। সেটি ছিল এই সিরিজ এর অন্তর্ভুক্ত প্রথম মিসাইল। তারপর অনেক। দিন ধরে আস্তে আস্তে রাশিয়া নিজেদের সফলতা বাড়িয়ে এস-৪০০ তৈরি করেছে ও আগামী দিনে এস-৫০০ মিসাইল তৈরি করার জন্য চেষ্টা করছে রাশিয়া।