সংগীতশিল্পী রানু মন্ডলকে প্রথমে তার মেয়ে ছেড়ে দিয়েছিল অসহায়, মা সেলিব্রিটি হতেই দৌড়ে চলে এলো মেয়ে..

রানু মন্ডল এর নাম তো আপনারা অবশ্যই শুনে থাকবেন,হয়তো খুব কমই এমন ব্যক্তি থাকবে যারা রানু মন্ডল এর মধুর আওয়াজ শোনেন নি। এই কথাটা সত্য যে যদি কোন ব্যক্তির কাছে ধন-দৌলত কোনোটি না থাকে তাহলে তার নিজের লোকে তাকে ছেড়ে চলে যায় কিন্তু যদি তার কাছে এই দুটি থাকে তাহলে আত্মীয়দের ভালোবাসা তার ওপরে বেড়ে যায় , আর এমনই ঘটনা ঘটলো রানু মারিয়া মণ্ডলের সঙ্গে। বিগত ১০ বছর ধরে রানু মন্ডল এর মেয়ে তার মায়ের সাথে কোন সাক্ষাৎ রাখেনি।

কিন্তু এই ১০ বছর পর রানু মন্ডল যখন বলিউডে নেমেছেন, তার জনপ্রিয়তা বেড়েছে, তার কাছে টাকা এসেছে তখন তার মেয়ের তার মায়ের কথা মনে পড়েছে। রানু মন্ডল রেলস্টেশনে গান করে দিন চালাতো, তার কাছে থাকার মত ছিল না কোন বাড়ি ,গান করে যেটুকু পেত সেটাতেই তার দিন চলত। কিন্তু এখন রানু মন্ডলের কারো কোন পরিচয়ের দরকার নেই। তার জীবন কাহিনী সকলের কাছে একটি প্রেরণা জাগিয়েছে। আজ মানুষ তার সম্বন্ধে জানতে তাকে চিনতে অনেক বেশি আগ্রহী।

কিন্তু রানু মন্ডল এর কাছে আজ এতকিছু চলে আসার পর তার মেয়ের তার কথা মনে পড়েছে। আসলে রানু মন্ডল এবং তার মেয়ে বিগত ১০ বছরে এক অপরের সঙ্গে কোনো রকম সম্পর্ক রাখেনি।সোশ্যাল মিডিয়ার ভিডিও গুলোতে বলা হচ্ছে যে রানু মন্ডল দেখতে খুব একটা ভালো নয় সেজন্যই তার মেয়ে তাকে ছেড়ে চলে গিয়েছিল। কিন্তু রানু মন্ডল তার মেয়েকে পেয়ে অনেক বেশি খুশি। রানু বললেন: আমি এবার নতুন করে দ্বিতীয় জীবন পেয়েছি, আর এই নতুন জীবনকে আমি আরো ভালো বানানোর চেষ্টা করব।

আপনাদের জানিয়ে দিই, রানু মন্ডল একটি রেলওয়ে স্টেশনে লতা মঙ্গেশকরের একটি জনপ্রিয় গান” এক প্যার কা নাগমা”এই গানটি গায়েছিলেন। কেও একজন ব্যক্তি এই গানের ভিডিওটি টিকটকে আপলোড করে দেন। এরপর রানু মন্ডলের ভাগ্যটাই বদলে গেল। এরপর রানু মণ্ডলকে একটি রিয়েলিটি শো তে ডাকা হয়েছিল সেখানে শো-য়ের হোস্ট তাকে জিজ্ঞেস করেছিলেন, যে তিনি স্টেশনে বসে কেন গান গাইতেন? এর উত্তরে রানু তাকে বললেন, তিনি রেলস্টেশনে এ কারণে গান গাইতেন কারণ তার কাছে কোন বাড়ি ছিল না, এবং গান করে যেটুকু রোজকার হতো তা দিয়েই তিনি তার দিন পার করতেন।


হিমেশ রেশমিয়া করিয়েছিলেন তাকে বলিউডে এন্ট্রি: বিগত বুধবার দিন লোকেদের তখন আশ্চর্য লাগলো যখন তারা রানু মন্ডল এর বলিউডে প্রবেশ এর কথা জানতে পারল। এবং এর সম্বন্ধে হিমেশ রেশমিয়ার তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে শে য়ার করেছিলেন। সেখানে রানু হিমেশ কে একসঙ্গে একটি স্টুডিওতে গান রেকর্ড করতে দেখা গেল।