জীবনের ৩০টা বছর বৃথাই কাটালাম! মৃত্যুর সাত মাস পর উদ্ধার সুশান্তের হাতে লেখা বিস্ফোরক চিঠি

প্রয়াত বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের (Sushant Singh Rajput) মৃত‍্যু্র পর কেটে গেছে সাত মাস। ২০২০ সালের ১৪ জুন মুম্বইয়ের  বান্দ্রায় নিজের ফ্ল্যাটেই  রহস্যজনক ভাবে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় উদ্ধার হয়েছিল সুশান্তের নিস্প্রাণ দেহ। এরপর অনেক প্রশ্ন, অনেক জল্পনা,  শুরু হয়েছে তদন্ত। তিন তিনটি তদন্তকারী সংস্থা একত্রে এই রহস্যজনক মৃত্যুর তদন্ত করছে। কিন্তু দীর্ঘ সাত মাস কেটে যাওয়ার পরেও  এখনো সশান্তের মৃত্যুর আসল কারণ জানা যায়নি সঠিক ভাবে।

সুশান্তের মৃত্যুর পর গোটা দেশ গর্জে উঠেছিল। তার মৃত্যুর তদন্তের দাবিতে সোশ্যাল মিডিয়াতে থেকে শুরু করে পথে নেমেছিল দেশ বিদেশের সুশান্তপ্রেমীরা। সুশান্তের মৃত্যুর  তদন্ত ও সুবিচারের দাবিতে আন্দোলনে সামনের সারিতে থেকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছিলেন  অভিনেতার দিদি শ্বেতা সিং কীর্তি (Shweta Singh Kirti)। এবার ভাই সুশান্তের মৃত্যুর সাত মাস পূরণের আগে সুশান্ত এর  নিজের হাতের লেখা একটি চিঠির ছবি শেয়ার করলেন শ্বেতা।

চিঠিতে নিজের জীবনের উপলব্ধির কথা লিখেছেন সুশান্ত। চিঠিতে লেখা আছে, তিনি জীবনের ৩০টা বছর কাটিয়েছেন ভালো কিছু হওয়ার চেষ্টায়, ভালো করার চেষ্টায়। কিন্তু ৩০ বছরের প্রেক্ষিতে তিনি যা বুঝলেন তিনি আসলে খেলাটাই ভুল ধরেছিলেন। তিনি কি হতে  চান তা নয়, বরং তিনি নিজে কি ছিলেন সেটা খুঁজে বের করাটাই ছিল আসল খেলা।

এখন বাড়িতে বসেই করতে পারবেন PAN CARD সংশোধন, কীভাবে করবেন জানতে

শ্বেতা সিংয়ের শেয়ার করা এই চিঠির ছবি মুহূর্তের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। সুশান্ত অনুগামীরা মৃত অভিনেতা যাতে ন্যায়  বিচার  পান তার দাবিতে  জাস্টিস ফর সুশান্ত স্লোগান দিয়ে ভরিয়ে দিয়েছেন ছবির কমেন্টে।

প্রসঙ্গত, সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর প্রাথমিক ভাবে তার বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীর ওপর সন্দেহ ছিল পুলিশের। এরপর মাদক মামলায় নাম জড়ায় রিয়া চক্রবর্তী ও তার ভাইয়ের। কিন্তু গ্রেফতার হওয়ার কিছু ঘন্টা আগেই রিয়া সুশান্তের দিদি শ্বেতা সিংয়ের নাম গুরুতর অভিযোগ করেন। রিয়া বলেছিলেন, সুশান্তের দিদি শ্বেতা সিংয়ের নির্দেশেই সুশান্ত মানসিক অবসাদের ওষুধ খেত। এই অভিযোগে শ্বেতা সিংয়ের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছিলেন রিয়া।