অধিনায়কের দায়িত্বভার পেতেই ব্যাট থেকে গড়ে তুললেন চার-ছয়ের রেকর্ড বৃষ্টি মাঠে..

ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে দেখা মেলেনি ভারতীয় ওপেনার ব্যাটসম্যান গব্বর অর্থাৎ শিখর ধবনের, এর মূল কারণ ছিল তিনি চোটের কারণেই বাইরে ছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট টিম থেকে। তবে চোট সারিয়ে তাকে আবার প্রত্যাবর্তন করতে দেখা গেল রঞ্জি ট্রফির টুর্ণামেন্টে। এই মুহূর্তে দেশে রঞ্জি ট্রফি টুর্নামেন্ট চলছে। যেখানে এই রঞ্জির রণে সিনিয়র খেলোয়াড় থেকে শুরু করে জুনিয়র খেলোয়াড় আর নামী খেলোয়াড়দের থেকে শুরু করে অপরিচিত খেলোয়াড়রা সকলেই নিজেদের ক্রিকেট কৌশল দেখানো নিয়ে ব্যস্ত রয়েছে।

তবে এই টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় রাউন্ডে একটি ম্যাচ খেলা হয়েছিল হায়দ্রাবাদের সাথে দিল্লির।যেখানে দিল্লির দলের অধিনায়কত্ব করার জন্য দায়িত্বভার পেয়েছিলেন ভারতীয় দলের ওপেনার ব্যাটসম্যান তথা শিখর ধাওয়ান। আর এই ম্যাচের টস হায়দ্রাবাদের দল জেতে তারপর প্রথমে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। এই ম্যাচে দিল্লির অধিনায়ক শিখর ধবন একটি দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করেন। যেখানে তিনি 207 টি বলে 140 রানের একই দুর্দান্ত ইনিংস গড়ে তোলেন তিনি।

যার মধ্যে শামিল রয়েছে 19 টি চার আর 2 টি ছক্কার পারি। অধিনায়ক এর এরকম এক দুর্দান্ত প্রদর্শনের কারণে দিল্লির দলের মোট রান গিয়ে দাঁড়ায় 284। 71.4 ওভারে 10 উইকেট হারিয়ে দিল্লির দল গড়ে তোলে 284 রানটি।এই দিন লক্ষ্য করা যায় একদিকে যেমন দিল্লীর উইকেট লাগাতার পড়ে যাচ্ছিল ঠিক সেই সময় লাগাতার রানের বৃষ্টি করলেন দিল্লি টিমের অধিনায়ক শিখর ধাওয়ান। এখন নিজের চোট সারিয়ে ভারতীয় ক্রিকেট টিমে আবারও প্রত্যাবর্তন করেছেন ভারতের বাঁহাতি ওপেনার ব্যাটসম্যান শিখর ধাওয়ান।

আর এবারও রঞ্জি ট্রফিতে ফিরে দেখা গেল তার এই দুর্দান্ত প্রদর্শন। অন্যদিকে 5 জানুয়ারি ভারত বনাম শ্রীলংকা, আর 14 জানুয়ারি ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজের জন্য তাকে নির্বাচিত করা হয়েছে। এখন তার ওপর আশঙ্কা করা হচ্ছে যেভাবে তিনি রঞ্জি ট্রফিতে দুর্দান্ত প্রদর্শন করেছেন তার মতোই ভারতীয় দলের হয়ে বড়ো স্কোর করে ধামাকেদার প্রত্যাবর্তন করতে পারেন।

শিখর ধাওয়ান এখনো পর্যন্ত নিজের ক্যারিয়ারে 34 টি টেস্ট ম্যাচে 2315 রান, 133 টি ওয়ান ডে ম্যাচে 5518 রান, 58 টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে 1173 রান ও 159 টি আইপিএল ম্যাচে 4578 রান করেছেন, যেখানে টেস্ট ম্যাচে তার গড় রান 40.6, ওয়ানডে ম্যাচে গড় রানের ইনিংস 44.5,আর টি-টোয়েন্টিতে 27.85 আর IPL এ 33.17। যেখানে ওয়ানডে ম্যাচে তিনি 17 টি সেঞ্চুরি আর টেস্ট ম্যাচে 7 টি সেঞ্চুরি করেছেন।