মিলবে না বাবার সম্পত্তির কানাকড়িও! চরম সিদ্ধান্ত শত্রুঘ্ন সিনহার

বলিউডের অন্যতম বিখ্যাত নেতা শত্রুগণ সিনহা “রামায়ণে” বসবাস করেন তাঁর দুই ছেলে-মেয়ে এবং স্ত্রীকে নিয়ে। এখন সেইভাবে সিনেমা জগতে তাঁকে দেখতে না পাওয়া গেলেও এই প্রবীণ অভিনেতাকে আজও মনে রেখেছেন অনেকেই। ছেলেরা বলিউডে জায়গা না করতে পারলেও সোনাক্ষী সিনহা ইতিমধ্যেই বলিউডে নিজের মাটি শক্ত করে ফেলেছেন। কন্যার এই উন্নতি দেখে গর্ববোধ করেন বাবা।

সালমান খানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন সিনেমা জগতে নিজের যাত্রা শুরু করেছিলেন সোনাক্ষী। আজ বলিউডের প্রথম সারির নায়কদের সঙ্গে অভিনয় করা হয়ে গেছে তাঁর। ইনস্টাগ্রামে রয়েছে প্রায় কুড়ি মিলিয়নের বেশি ফলোয়ার। এককথায় বাবার মুখ রেখেছেন মেয়ে সোনাক্ষী।

তবে বাবার গর্ব হতে পারলেও বাবার সম্পত্তি থেকে কিন্তু বঞ্চিত হয়ে থাকবেন সোনাক্ষী সিনহা। কিন্তু কেন এই সিদ্ধান্ত নিলেন শত্রুঘন সিনহা? কেন বঞ্চিত করবেন নিজের একমাত্র মেয়েকে সম্পত্তি থেকে? প্রিয় সন্তান হলেও দুই বছর আগেই শত্রুঘন সিনহা ঘোষণা করে দিয়েছেন, মেয়েকে তিনি বঞ্চিত করবেন সম্পত্তি থেকে।

এই মুহূর্তে অভিনেতার কাছে প্রায় ১৯৩ কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে যার কানাকড়িও পাবেন না সোনাক্ষী সিনহা, সবটাই দুই ভাইয়ের মধ্যে সমানভাবে ভাগ হয়ে যাবে। কথাটি শুনে নিশ্চয়ই পুরুষতান্ত্রিক সমাজের মুখে ছাই দিতে ইচ্ছা করছে? না ব্যাপারটাকে একটু অন্যরকম। অভিনেতা দাবি অনুযায়ী, মেয়ে যা কিছু অর্জন করেছে নিজগুণে তাতে তার জীবন বেশ ভালই কেটে যাবে। বাবার সম্পত্তির উপর একেবারেই নির্ভরশীল নয় সোনাক্ষী সিনহা। অপেক্ষাকৃত আর্থিকভাবে দুর্বল দুই ছেলেকে সম্পত্তির ভাগীদার করতে চান বিহারীবাবু। আপাতদৃষ্টিতে ব্যাপারটি খারাপ মনে হলেও মেয়েকে নিয়ে যে কতখানি নিশ্চিন্ত প্রবীণ অভিনেতা তা এই সিদ্ধান্ত দেখেই বোঝা যায়।