ধর্ষকদের ফাঁসি লাইভ টেলিকাস্ট করা হোক, দাবি তৃণমূল সাংসদ শতাব্দীর

কোনও প্রক্রিয়া মেনে ধর্ষকদের ফাঁসি দেওয়ার দরকার নেই। তাদেরকে সরাসরি ফাঁসির কাঠে ঝুলানো হোক। এমনটাই দাবি করলেন তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়। এ নিয়ে তিনি বলেন, ” প্রথমে আদালতে ফাঁসি চাওয়া হবে, তারপর সেটা রাস্ট্রপতির কাছে যাবে, মা আসবে, বাবা আসবে। এতকিছু করার কোনও দরকারই নেই। সবার সামনে ফাঁসি দাও। আর সেটিকে লাইভ টেলিকাস্ট করা হোক।” হায়দ্রাবাদের পশুচিকিৎসকের ধর্ষণ করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তাল দেশের সাধারণ মানুষ।

এমন কী সংসদের উভয় কক্ষের এ নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে। সোমবার রাজ্যসভায় নারীদের নিরাপত্তা সংক্রান্ত এ বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে নিজের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন সমাজবাদী পার্টির সাংসদ তথা বলিউড অভিনেত্রী জয়া বচ্চন। এ নিয়ে তিনি বলেছেন ধর্ষকদের আমজনতার হাতে তুলে দেওয়া হোক। সাধারণ মানুষ এই ওদের পিটিয়ে প্রকাশ্যে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দিক। জয়া বচ্চনের এই দাবিকে সমর্থন জানিয়েছেন এ রাজ্যে তৃণমূল সাংসদ মিমি চক্রবর্তী এবং বিজেপি এমপি রূপা গঙ্গোপাধ্যায়।

যাদবপুরের সাংসদ মিমি চক্রবর্তী এদিন টুইট করে জানান যে,” তার (জয়া বচ্চন) মন্তব্যকে আমি সমর্থন করছি। আমার মনে হয়না নিরাপত্তা দিয়ে আদালতের ধর্ষকদের নিয়ে যাওয়ার কোন দরকার আছে। এবং তাদের বিচারের জন্য কোন অপেক্ষা করার দরকার নেই। দর্শকদের সঙ্গে সঙ্গে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।” এরপরে তিনি আরো মন্তব্য করেন যে, সমস্ত মন্ত্রীদের কাছে আমি অনুরোধ করছি যে এমন কঠিন আনা হোক যাতে ধর্ষণ করার আগে 100 বার ভাবতে হয়। এমনকি মেয়েদের দিকে খারাপ উদ্দেশ্যে তাকাতেও যাতে ভয় পায়।
তেলেঙ্গানায় গত বুধবার ঘটে যাওয়া এই ঘটনায় গোটা দেশ শিউরে উঠেছে। 26 বছরের তরুণের ওই আধাপোড়া দেহাংশ খুঁজে পাওয়া 24 ঘণ্টার মধ্যে অপরাধীদের ধরে ফেলেছে সাইবারাবাদ পুলিশ। মহম্মদ আরিফ(26), জল্লু শিবা(20), জল্লু নবীন(20), চিন্তকুন্ত চেন্নাকেশভুলু(20) এই চারজন ট্রাকের কর্মী অভিযুক্ত হিসেবে ধরেছে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধির 302 ধারায় খুন, 375 ধারায় ধর্ষন , 362 ধারায় অপহরণের মামলা রুজু করা হয়েছে। হায়দ্রাবাদের ধর্ষণকান্ডের প্রতিবাদে সোমবার দিল্লির যন্তরমন্তরে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়। কালো ব্যান্ড এবং ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ লেখা প্ল্যাকার্ড নিয়ে বিক্ষোভ দেখান অনেকেই।অনেক পড়ুয়া এই কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছেন।

Related Articles

Close