করোনা ভাইরাসের সংকট শেষ হলে পৃথিবীতে আসতে চলেছে সাতটি বড় পরিবর্তন…

সারা বিশ্ব জুড়ে যে করোনা মহামারী চলছে তা একদিন না একদিন ঠিক থেমে যাবে। আমাদের প্রজন্মের এটিই হচ্ছে সম্ভবত সবথেকে বড় সংকট। তবে বিভিন্ন দেশের সরকার এবং জনগণ আগামী কয়েক সপ্তাহের যে সিদ্ধান্ত নিতে চলেছেন বা নিয়েছেন তাতে আমাদের ভবিষ্যতে পৃথিবীর গতি পথ অনেকটাই বদলে দেবে। বদলে যাবে আমাদের অর্থনীতি, রাজনীতি, সাংস্কৃতিক গতিপথ। করোনা ভাইরাস মোকাবিলার পর আমাদের পৃথিবী কেমন হতে চলেছে সেই সম্পর্কে মতপ্রকাশ করেছেন একদল গবেষক। এবার আমরা সেই সমস্ত বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করব।

1. দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা বাড়বে :আমাদের মধ্যে খুব তাড়াতাড়ি সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা বেড়ে যাবে এর ফলে। কারণ মহামারী চলাকালীন সরকার থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ বহুবার খুব তাড়াতাড়ি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন অনেক কিছু।ফলে এই অভ্যাসটি ভবিষ্যতেও কাজে লাগবে।বিভিন্ন ধরনের শিল্প, মেয়াদী জরুরি অবস্থা তখন আমাদের জীবনে ডাল-ভাতের মতো মনে হবে।

2. পরীক্ষা-নিরীক্ষা বাড়বে : করোনাভাইরাসের রেস কেটে গেল পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার ক্ষমতা বেড়ে যাবে দেশে এমনটাই মতপ্রকাশ বিশেষজ্ঞদের। যেমন সবাই বাড়িতে থেকে কাজ করলে কী ঘটবে এবং কিছুটা দূরত্ব মেনে যোগাযোগ রাখলে কী হবে? সমস্ত স্কুল- কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইনে ক্লাস করালে কী হবে? যখন দেশে স্বাভাবিক অবস্থা ছিল তখন কোনো সরকারই এ রকম পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে রাজি হতেন না যা এখন করতে বাধ্য হচ্ছে।

3. অভ্যানস থেকে যাবে : করনা সংক্রমণ এড়াতে বর্তমানে বাড়িতে রয়েছি সবাই। হোম কোয়ারেন্টাইন পালন করছি এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হচ্ছে। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন করোনা ঝড় থামলেও এই অভ্যাস মানুষের মধ্যে থেকে যাবে।

4. প্রতিষ্ঠানগুলি বিপদে পড়বে : ইতিমধ্যে লকডাউন এর ফলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানগুলি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এই ক্ষতির রেশ করোনা পরবর্তী সময়েও চলবে বলে মনে করেছেন। বিভিন্ন শপিংমল, এয়ারলাইনস, বিমান সংস্থা, বিমানবন্দর গুলি প্রবল ঝুঁকির মুখে পড়বে। অর্থনৈতিক পতনের সাথে সাথে বিভিন্ন দেশের সরকারও ভেঙে পড়তে পারে। 5. পেট্রোল রাজ্যগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হবে :তেলের দাম পতনের কারণে পেট্রোল রাজ্যগুলির অর্থনৈতিক অবস্থা ভেঙে পড়তে পারে।  মূলত তেলের দাম কমে যাওয়া এবং হজ বাতিলের কারণে সৌদি আরবের অর্থনৈতিক অবস্থা পুরোপুরি ভেঙে পড়তে পারে। কারণ দেশটির বৃহত্তম আয়ের উৎস এই দুটি জায়গা থেকেই।

6. জাতীয়তাবাদের উত্থান ঘটবে :খাদ্য ও চিকিৎসা সরবরাহ এবং শস্য রপ্তানিসহ ইত্যাদি কারণে জাতীয়তাবাদের উত্থান ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন এই বিশেষজ্ঞ দল। এছাড়া ইউরোপের অসংখ্য দেশে রক্তক্ষয়ী সংঘাত ঘটতে পারে বলে মনে করা হয়েছে।
7. সভ্যতার সংকট সৃষ্টি হতে পারে : এই করোনা ভাইরাস মানব সভ্যতার কাছে একটি বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে দাঁড়িয়েছে। একই সঙ্গে সারা বিশ্বজুড়ে আর্থিক সংকট দেখা দিয়েছে এর ফলে। এর কারণ এই জৈবিক ও সভ্যতার ক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন আসবে। অর্থনৈতিক এবং খাদ্য সংকট দেখা দেওয়ার কারণে যুদ্ধ-বিগ্রহ বেড়ে যাওয়ার প্রবল সম্ভাবনা দেখা দেবে। এছাড়া বিশেষজ্ঞ দল আন্তর্জাতিক ও স্থানীয় সন্ত্রাসবাদ বৃদ্ধি পাবার সম্ভাবনা দেখছেন।