দু’ঘণ্টার বেশি সোশ্যাল মিডিয়ায় থাকলে মারাত্মক বিপদ হতে পারে সতর্ক করলেন বিজ্ঞানীরা

এই প্রজন্মের কাছে অবসরের বেশিরভাগ সময় কাটে ইন্টারনেটে মুখ গুঁজে। ইন্টারনেট মানেই হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া। বর্তমানে বিনোদনের প্রধান মাধ্যম হলো সোশ্যাল মিডিয়া। কে কী খাচ্ছে, কী পরছে, কোথায় যাচ্ছে, সমস্ত কিছু স্ট্যাটাস আপডেট করা যায় কিংবা সমাজ রাজনীতি কোথায় কী ঘটেছে তার আলাপ-আলোচনা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কিন্তু সারাক্ষণ সোশ্যাল মিডিয়ায় থাকলে মানসিক সমস্যা বেড়ে চলেছে বলে দাবি করেছেন বিজ্ঞানীরা। একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে অতিরিক্ত সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কাটালে দেখা দিতে পারে মানসিক অবসাদ।

 

ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, স্ন্যাপচ্যাট এর মতন সোশ্যাল সাইটে যত বেশি সময় থাকবেন ততই মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে জানিয়েছেন আমেরিকার গবেষকরা।ঠিক কতক্ষণ সোশ্যাল মিডিয়ায় কাটানো উচিত? এই নিয়ে আগেও একাধিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং সমীক্ষা চলেছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কম বয়সী ছেলেমেয়েদের সোশ্যাল মিডিয়ার প্রতি এক প্রকারের অ্যাডিকশন দেখা যায়। ইউনিভার্সিটি অফ আর্কানসাস চিকিৎসক ব্রায়ান এ বিষয়ে জানান, সোশ্যাল মিডিয়ার কারণে মানসিক স্বাস্থ্য বিঘ্নিত হচ্ছে। মানসিক অবসাদ এবং মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা দুয়ের মধ্যে সূক্ষ্ম পার্থক্য রয়েছে যা খুব সহজে বোঝা যায় না।

Transparent Twitter Facebook Logo - Fb Twitter And Instagram Icon Transparent PNG - 680x400 - Free Download on NicePNG

অনেকেই বলে থাকেন সোশ্যাল মিডিয়ার কারণে অবসাদ হয়। কিন্তু কোনটা যে মানসিক সমস্যা কোনটা অবসাদ তা খুব সহজে বোঝার উপায় নেই। ডিপ্রেশন বা মানসিক অবসাদে থাকলে তা সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার এর উপর সেভাবে প্রভাব ফেলে না। কিন্তু কেউ যদি অত্যন্ত বেশি সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করেন তাহলে তার অবসাদ তৈরি হতে পারে।

 

প্রকাশিত হল ২০২০ সালের বলিউডের সেরা ১০ নায়ক- নায়িকার তালিকা, সবার প্রথমে রয়েছে..

 

সমীক্ষায় দেখা গেছে 18 থেকে 30 বছর বয়সী মানুষরা অত্যধিক মাত্রায় সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে থাকেন। তাদের প্রত্যেককে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়। তাদের সকলেরই উত্তর ছিল প্রায় দুই ঘণ্টার বেশি সময় প্রত্যেকদিন তারা সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে। কিন্তু সত্যিই কি এতক্ষণ সোশ্যাল মিডিয়ায় কাটানো উচিত? এমন আছে যে কেউ 5 থেকে 6 ঘন্টা সোশ্যাল মিডিয়ায় কাটান।

পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানোর পরিবর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় সময় কাটান৷ এর ফলে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে মানুষ এর মনে৷ মানুষ আত্মকেন্দ্রিক হয়ে যাচ্ছে ক্রমশ। ফলে মানসিক সমস্যা বাড়ার সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে। বর্তমানে সকলেই নিজের মতন করে গৃহবন্দী। সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হচ্ছে। তাই এই সময়ে সোশ্যাল মিডিয়া আরো বেশি মানুষকে আষ্টেপৃষ্ঠে বেঁধে ফেলেছে। কিন্তু অত্যধিক ব্যবহারে আদৌ কোনো লাভ হয়না। তাই যতটা সম্ভব পরিবারের সঙ্গে সময় কাটান সৃষ্টিশীল কিছু কাজ করুন। নিজেকে ভালো কাজে ব্যস্ত রাখুন অহেতুক সোশ্যাল মিডিয়ায় সারাক্ষণ সময় কাটিয়ে নিজের মানসিক স্বাস্থ্যের অবনতি না করা মঙ্গলের।