বাড়ি-গাড়ি ঋণে বড় ঘোষণা SBI-এর,জুলাই থেকে হতে চলেছে কার্যকর…

গাড়ি-বাড়ি ইত্যাদি সংক্রান্ত ঋণ নিয়ে বড় ঘোষণা করল দেশের সবথেকে বড় ব্যাংক স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া। আগামী পয়লা জুলাই থেকে এই নয়া নিয়ম কার্যকর হতে চলেছে। এসবিআই এর তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে, পরের মাস থেকে বাড়ি-গাড়ি ঋণের হার পুরোপুরিভাবে আরবিআইয়ের ঋণ নীতি সঙ্গে যুক্ত করার কথা ভেবে নিয়েছে। আরবিআইয়ের ত্রৈমাসিক রেপো রেপো রেটের ভিত্তিতে এসবিআই সুদের হার নিয়ন্ত্রণ করবে বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া।

এসবিআইএর তরফ থেকে জানানো হয় যে, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক যে হারে রেপো রেট ঘোষণা করবে ঠিক সেই হারে সুদের হার নিয়ন্ত্রণ করবে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। রেপো রেট বাড়লে সুদের হারও সেই ভাবে বাড়বে। আবার উল্টোদিকে রেপো রেট কমলে সুদের হার ও কমবে। বিশেষজ্ঞদের মতে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে গ্রাহকদের মধ্যে মিশ্র প্রভাব পড়বে। গাড়ি-বাড়ি ঋণের হার প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর পরিবর্তন হবে।

এই নিয়ম কার্যকর হলে ইএমআইয়ের উপর সরাসরি প্রভাব পড়বে। এর সঙ্গে সঙ্গে ভালো এবং খারাপ দুই পরিস্থিতির মুখোমুখি হবে দেশের আম জনতা। এর প্রভাব কিছুটা ব্যবসায়ীদের মধ্যে পড়বে। ওডি ও সিসি একাউন্টের সুদের হার ও ওঠানামা করবে এর ফলে। এছাড়াও ব্যাংকে জমানো আমানতের উপর সুদের হার তিন মাস পর পর ওঠানামা করতে পারে। সে ক্ষেত্রে যে সমস্ত ব্যক্তিরা সুদের টাকার উপর ভরসা করে থাকেন তাদের ক্ষেত্রে অসুবিধা হতে পারে। রেপো রেট সম্পর্কে যারা জানেন না তাদের বলি উপরের কি, রেপো রেট হোলো রিজার্ভ ব্যাংকের সুদের বাণিজ্যিক ব্যাংক গুলোকে ঋণ দিয়ে থাকে।

বাণিজ্যিক বেঙ্গলি যদি কম সুদে রিজার্ভ ব্যাংকের কাছে ঋণ নিয়ে থাকেন তাহলে তারাও তাদের গ্রাহক বা কোন প্রতিষ্ঠানকে কম সুদে ঋণ দিতে পারেন। গত বৃহস্পতিবার এই টানা তিনবার রেপো রেট কমেছে আরবিআই। এখন থেকে 5.75 হারে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে ঋণ দেবে আরবিআই। এই আর্থিক বস অর্থাৎ 2019-20 সালের মধ্যে এটি আরবিআই এর দ্বিতীয় সুধ নীতি। আরবিআই এর নতুন গভর্নর শক্তিকান্ত দাস এর আমলে এটি তৃতীয় ঋণ নীতি।
বৃহস্পতিবার আরবিআই রেপো রেট 0.25 বেস পয়েন্ট কমিয়ে 5.75 শতাংশ করা হয়। এই দিনে আরবিআই টানা তিনবার রেপো রেট কমিয়েছে। প্রসঙ্গত গত বছরের জানুয়ারি মাস থেকে রেপো রেট 8 শতাংশ এ রেখে দিয়েছে দেশের শীর্ষ ব্যাংক। মূল্যবৃদ্ধি ধীরে ধীরে কমতে থাকায় অনেকদিন ধরেই বেঞ্চমার্ক সুদ কমানোর জন্য দেশের এই শীর্ষ ব্যাংকের ওপর চাপ বাড়ছিল। এছাড়াও ব্যাংক ও শিল্পমহলের সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের ও চাপ বাড়ছিল। এরপর রেপো রেট 8 শতাংশ থেকে কমে 5.75 শতাংশতে আনা হয়। রিজার্ভ ব্যাংকের এই রেপো রেট কমানোর ফলে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলি এর সুবিধা পেলেও সাধারণ ঋণগ্রহীতারা এর সুযোগ সুবিধা পারছিলেন না। বাণিজ্যিক ব্যাংক গুলি যদি তাদের ঋণের হার কমায় তবেই তাদের ঋণে সুদের হার কম হয়। বাণিজ্যিক বেঙ্গলি যদি গৃহঋণে সুদের হার কমায় তাহলে এর সুবিধা সাধারন মানুষরা পাবে।

তাই এই সুবিধা সরাসরি সাধারণ মানুষদের দেবার জন্য এবার থেকৈ আরবিআই রেপো রেট এর সঙ্গে সরাসরি এসবিআই তাদের ঋণ নীতি যুক্ত করে দিচ্ছে। এর ফলে প্রতি তিন মাস অন্তর পান্ত রেপো রেট কতটা কমলো কতটা বাড়লো তা সাধারণ মানুষকে জানতে হবে।