SBI এর আকর্ষণীয় স্কিম! প্রতিমাসে মাত্র ১০০০ টাকা করে জমা দিয়ে পেয়ে যান ১.৫৯ লাখ টাকার রিটার্ন

আজকের এই দুর্মূল্যের বাজারে খরচ যতটা সম্ভব বাঁচিয়ে মানুষ কেবলমাত্র টাকা সঞ্চয় করতে চাইছে৷ দিন দিন ব্যাঙ্কের সুদ কমছে তাই সঞ্চিত অর্থ কীভাবে আরও বাড়ানো যায় তার নানা উপায় জানাও এখন খুব প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।

বলা বাহুল্য বিনিয়োগ না করলে সেখান থেকে অতিরিক্ত রিটার্ন পাওয়ার কোনও সম্ভাবনা নেই।  শেয়ার বাজার, কমোডিটি এক্সচেঞ্জে বা বন্ডে টাকা বিনিয়োগ করলে ভালো রিটার্ন পাওয়া যায় কিন্তু এক্ষেত্রে  ঝুঁকিও প্রবল। এদেশের অধিকাংশ মানুষ সেই ঝুঁকি নিতে চান না। ঝুঁকিহীন নিশ্চিত আয়   অনেক বেশি প্রিয়৷ আপনিও যদি আয় বাড়ানোর জন্য এমন কোনও উপায় এর খোঁজ করে  থাকেন তবে ভারতীয় স্টেট ব্যাঙ্কের (SBI) এই স্কিম লাভদায়ক হতে পারে। এই প্রকল্পে মাসে মাসে অল্প অল্প করে সঞ্চয় করবেন৷ এক সময় আপনাকে এককালীন অনেকটা আয় হবে৷

SBI

সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে  SBI-এর বিভিন্ন প্রকল্প আছে।  রেকারিং ডিপোজিট (SBI RD) অন্যতম জনপ্রিয় একটি প্রকল্প। এই প্রকল্পে  সাধারণ মানুষ প্রতি মাসে নির্দিষ্ট পরিমাণ একটি অর্থ জমা রাখতে পারেন। এভাবেই রেকারিং ডিপোজিটের মাধ্যমে একজন ব্যক্তি অল্প অল্প করে একটা বড় অঙ্কের টাকা সঞ্চয় করতে পারেন।  SBI RD-তে লগ্নি সম্পূর্ণ ঝুঁকি মুক্ত। এখান থেকে আয়ও নিশ্চিত।

সাধারণ গ্রাহকদের ক্ষেত্রে ৩ থেকে ৫ বছর মেয়াদে রেকারিং ডিপোজিট করা যায়। এখন স্টেট ব্যাঙ্ক  ৫.৩ শতাংশ সুদ দিচ্ছে দেশের বৃহত্তম এই ব্যাঙ্কিং প্রতিষ্ঠানটি। আর ৫ বছরের বেশি মেয়াদে SBI RD-তে সুদের হার ০.১০ শতাংশ বেশি।   অর্থাৎ ৫.৪ শতাংশ।

বর্তমান কোভিড পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে বাংলায় ভোটের নিয়মে দশটি বড়োসড়ো পরিবর্তন

ফিক্সড ডিপোজিটের মতো RD-র ক্ষেত্রেও প্রবীণ নাগরিকরা SBI-তে অতিরিক্ত সুদ পাবেন। ৫ বছরের বেশি মেয়াদে এক্ষেত্রে সুদের হার ৬.২ শতাংশ। বর্তমান সুদের হারে ৬০ বছরের কম বয়সী কোনও গ্রাহক ১০ বছরের মেয়াদে SBI RD প্রকল্পে প্রতি মাসে ১,০০০ টাকা লগ্নি করলে মেয়াদ শেষে ৫.৪ % সুদ সহ তিনি মোট ১ লক্ষ ৫৯ হাজার টাকা পাবেন।