নিজের ক্যারিয়ার বাঁচাতে একাধিক দক্ষিণী সিনেমার রিমেক করেছিলেন সালমান খান, কামিয়েছিলেন মোটা অংকের টাকাও

বর্তমানে সাউথের সিনেমাগুলি বলিউড ইন্ডাস্ট্রি কে টেক্কা দিচ্ছে, হিন্দি দর্শকদের কাছে এখন বলিউড সিনেমা গুলির থেকে দক্ষিনী সিনেমাগুলি বিশেষ প্রাধান্য লাভ করেছে। একটার পর একটা যেভাবে ব্লকবাস্টার দক্ষিণী সিনেমাগুলি দর্শকদের সামনে আসছে তার কাছে এই বলিউড ইন্ডাস্ট্রি অনেকটাই পেছনে পড়ে রয়েছে বলেই মনে করছেন একাধিক বিশেষজ্ঞরা।

তবে বলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সাফল্যের পিছনে ও কিন্তু হাত রয়েছে সাউথের সিনেমাগুলির। বলিউডের ভাইজান সালমান খানের ক্যারিয়ার এত উঁচু পর্যায়ে গেছে কারণ হলো দক্ষিণী সিনেমা। দক্ষিনী ছবিতে কাজ করে তিনি বিপুল পরিমাণ অর্থ অর্জন করেছিলেন। আজকের এই প্রতিবেদনে আমরা আলোচনা করব সালমান খান কোন কোন সাউথ ছবির রিমেকে কাজ করেছিলেন।

প্রথম ছবিটি হলো “তেরে নাম” যেটির পরিচালক সতীশ কৌশিক। এটি ছিল ভাইজানের জীবনের একটি সফল ছবি, কারণ এই ছবিটিকে কেন্দ্র করে সালমান খানের ডুবন্ত কেরিয়ার আবার সফলতা লাভ করেছিল।

এরপরেই সালমান খানের “ওয়ানটেড” ছবিটি তাঁর জীবনের সাফল্যের চাবিকাঠিকে আরো একধাপ এগিয়ে দিয়েছিল। এই ছবিটি ছিল দক্ষিণী সুপারস্টার মহেশ বাবুর ছবি “পোকারির” রিমেক।

এরপরে সালমান এবং কারিনা কাপুরের “বডিগার্ড” ছবিটি হয়েছিল সুপারহিট ছবি। ছবিটি ছিল কমেডি, অ্যাকশন এবং রোমান্টিক ,যার কারণে দর্শকদের কাছে এটি বিশেষ আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছিল।

তবে এই “বডিগার্ড “ছবিটি ছিল মালায়ালাম ছবি “কাভালানের” রিমেক। এরপর ছিল “রেডি” এই সিনেমাটিও দক্ষিণী সিনেমার রিমেক ছিল। সবচেয়ে জনপ্রিয় কমেডি ছবিটি ছিল “নো এন্ট্রি” যেটিতে সালমান খানের সাথে অভিনয় করেছিলেন ফারদিন খান, এশা দেওয়াল, অনিল কাপুর, লারা দত্ত, সেলিনা জেটলি। এই ছবিটি তামিল ছবি “চার্লি চ্যাপলিনের” রিমেক ছিল।