নতুন খবরবিশেষরাজনৈতিকরাজ্য

তবে কি এবার বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন সব্যসাচী? মুকুলের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার পর কি প্রতিক্রিয়া দিলেন সব্যসাচী?

2019 এর লোকসভা ভোটের আগে ফের তৃণমূল কংগ্রেসের সদস্য সংখ্যা কমতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে। তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা তথা বিধাননগর পুরসভার মেয়র সব্যসাচী দত্তের সঙ্গে মুকুল রায়ের বৈঠক হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। শুক্রবার রাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় এমনই খবর ছড়িয়ে পড়ে চারিদিকে। বিজেপি নির্বাচন ম্যানেজমেন্ট কমিটির মূল মুকুল রায় রাজনীতিতে ‘গুরু’ বলেই পরিচিত। এদিন সব্যসাচী দত্ত এর সাথে মুকুল রায় দেড় ঘণ্টা মিটিং করেছেন। সব্যসাচী দত্তের বিধান নগরের বাড়িতে এই বৈঠক হয়। যদিও এই পুরো বিষয়টি সব্যসাচী দত্ত উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, ” আমি বিজেপিতে যোগ দিচ্ছি এই খবর সম্পূর্ণ অবাস্তব। তবে বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃত্বের সঙ্গে আমার আলাপ রয়েছে।

 

আবার অনেকের সাথে ব্যক্তিগত স্তরেও আলাপ রয়েছে। সিপিএমের নেতা সুজন চক্রবর্তীকে যেমন আমার বাড়িতে স্বাগত জানাব তেমনি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রকেও আমার বাড়িতে স্বাগত জানাবো। পারিবারিক এবং ব্যক্তিগত সূত্রে বহু নেতা আমার বাড়িতে আসেন। আমার বাবা যখন মারা গিয়েছিলেন তখন সৌমেন বাবু আমার বাড়ি এসেছিলেন। আমি আবারো বলছি, আমি বিজেপিতে যোগদান করছি- এটি সম্পূর্ণ ভুয়ো খবর।” তৃণমূল স্তরে সব্যসাচী দত্তের লড়াকু নেতা হিসেবে বেশ খ্যাতি নাম আছে। বিধান নগরে তার অসাধারণ জনসংযোগ এবং সুব্যবহার কে কাজে লাগিয়ে তিনি জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছে গিয়েছিলেন। 2010 সালে বিধাননগরে বামফ্রন্টকে হারিয়ে পুরোবোর্ড দখল করে তৃণমূল কংগ্রেস। এরপর অনিতা মন্ডল বিধান নগরের চেয়ারপার্সন হিসেবে নির্বাচিত হন। এরপর 2011 সালে রাজারহাট নিউটাউন বিধানসভা কেন্দ্র থেকে বিধায়ক হন সব্যসাচী দত্ত। এরপর 2016 সালে তিনি নিকটবর্তী প্রতিদ্বন্দ্বী কে হারিয়ে জয়ী হয়েছিলেন। তবে তৃণমূলের সব্যসাচী দত্ত এর রাজনৈতিক জীবন প্রতিপালিত হয়েছিল পুরোপুরি মুকুল রায়ের অধীনে।

 

সে ক্ষেত্রে অনেক সময় সবুজের দত্ত তাঁর মুকুল দা কে রাজনৈতিক গুরু বলতেন। মুকুল রায় তৃণমূল ছাড়ার পরেও যে এই সম্পর্ক শেষ হয়ে যায়নি তার প্রমাণ মিলেছে শুক্রবার রাতে। এমনকি সব্যসাচী দত্তের বাবার পরলৌকি কাজের সময় মুকুল রায় উপস্থিত ছিলেন। খবর সূত্রে জানা যায় রাজারহাট নিউটাউনের বেশ কিছু বিষয়ে দলের কাজকর্ম নিয়ে ক্ষুব্দ সব্যসাচী দত্ত। দলের বিরুদ্ধে তার অসন্তোষ জন্মেছে। এমনকি তৃণমূলের এক শীর্ষস্থানীয় নেতা সাথে তার ক্ষোভ রয়েছে বলে জানা যায়। তাই মুকুল রায়ের সাথে এদিন বৈঠকের পরে এটা বোঝা যাচ্ছে যে লোকসভা ভোটের আগে মুকুল রায় সব্যসাচী দত্ত কে নিজেদের দলে টানতে চাইছেন।

Related Articles

Back to top button