আজ রোহিত শর্মা নিজেরই তৈরি বিশ্ব রেকর্ড ভাঙতে চলেছে ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ ওয়ানডে সিরিজে

আজ ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যে ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় খেলাটি অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। এই দ্বিতীয় ম্যাচটি ভারতের বিশাখাপত্তনমে অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ভারতকে 8 উইকেটে হারিয়ে ম্যাচটি নিজেদের নামে করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। যদিও সেই দিনের ম্যাচে রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, লোকেশ রাহুল এর পারফরমেন্স খুবই নিরাশা জনক ছিল তবুও ভারত সেইদিন 287 রানের একটি বড় টার্গেট দিয়েছিল ওয়েস্টইন্ডিজকে, তবে শেষ পর্যন্ত ভারতকে হারাতে হয় সে ম্যাচ।

তবে আজকে যে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হতে চলেছে বিশাখাপত্তনমে সেটিতে যদি ভারতীয় দলের ওপেনিং ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা তিনটি ছক্কা মারতে পারেন তাহলে তিনি এক ক্যালেন্ডার ইয়ারেই 75 টি ছক্কা পূর্ণ করা প্রথম ব্যাটসম্যান হয়ে যাবেন।এখনো পর্যন্ত এই বছর তিনি মোট 72 টি ছক্কা মেরেছেন যার মধ্যে রয়েছে টেস্ট ক্রিকেটে 20টি, ওয়ানডে ক্রিকেটে 30 টি, আর টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে 22 টি ছক্কা। ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের প্রথম ম্যাচটি রহিত শর্মা 36 রানের একটি ইনিংস খেলেছিলেন তবে এই দিন তার খেলা এই ইনিংসে ছিলনা কোন ছক্কা।

তবে বলে রাখি এই বছরের সবচেয়ে বেশি আন্তর্জাতিক ছক্কা মারার ক্ষেত্রে কিন্তু বিশ্বরেকর্ডে রোহিত শর্মারই নাম নথিভুক্ত রয়েছে। অন্যদিকে গত বছর 2018 তে তিনি 72 টি ছক্কা মেরেছিলেন আর তার আগের বছরও অর্থাৎ 2017 তে তিনি 65 টি ছক্কা মেরেছিলেন। আর এই ভাবেই তিনি এক ক্যালেন্ডার ইয়ারের খেতাবে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় স্থানটি অধিকার করেছেন। তবে রোহিত শর্মার আগে এই রেকর্ডে নাম ছিল এবি ডি ভিলিয়ার্সের,2015 সালে 63 টি ছক্কা মারার খেতাব ছিল তার নামে।

তাই দ্বিতীয় দিন বিশাখাপত্তনমে অনুষ্ঠিত হওয়া ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে ভারতীয় দলের ক্ষেত্রে কারণ এই ম্যাচে যদি ভারতীয় টিম ভালো প্রদর্শন করতে পারে ও তাহলে ওয়ানডে সিরিজের খেতাবটিও নিজেদের নামে করবার আশঙ্কা থাকবে।আর এই কারনেই আজ সকল ক্রিকেটপ্রেমীদের নজর থাকতে চলেছে অধিনায়ক বিরাট কোহলির ব্যাটিংয়ের উপর আর সহ-অধিনায়ক রোহিত শর্মার উপর।

অন্যদিকে শিখর ধবন এর অনুপস্থিতিতে কীভাবে রোহিত শর্মার সঙ্গে তালে তাল মিলিয়ে দুর্দান্ত প্রদর্শন করতে পারেন কিনা লোকেশ রাহুল সেদিকেও নজর থাকবে সকলের।তবে দুর্ভাগ্যবশত যদি ভারতে এই ম্যাচ হেরে যায় তাহলে 2006 এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজের হাতে তাদের প্রথম দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হার হবে ভারতের।