চিকিৎসা ক্ষেত্রে এক নতুন পদক্ষেপ কেন্দ্রীয় সরকারের! কিছুদিনের মধ্যেই ভারতের শুরু হতে চলেছে রোবট পরিচালিত চিকিৎসা…

বর্তমান যুগে যে প্রযুক্তিগত বিদ্যার ব্যাপকভাবে উন্নতি ঘটেছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এইরকম ভাবে প্রযুক্তিবিদ্যার উন্নতি ঘটতে থাকলে কয়েক দশক পরে বিশেষজ্ঞরা অনুমান করেছেন গোটা বিশ্ব রোবট নির্ভর বিশ্বে পরিণত হবে। চিকিৎসা ক্ষেত্রে এবার রোবটের ব্যবহার দেখা গেল। চিকিৎসা ক্ষেত্রে উচ্চ প্রযুক্তির রোবট নিয়ে এলো ভারতের সাফদাজং হাসপাতাল। গত মাসেই কেন্দ্রীয় সরকার পরিচালিত এই হাসপাতালটিতে রোবটের সহায়তায় উন্নত মানের চিকিৎসা পদ্ধতি শুরু হয়েছে।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য দপ্তরের দীর্ঘ চার বছরের প্রচেষ্টার ফলে যুক্তরাষ্ট্র থেকে এই রোবট গ্রহণ করা হয়েছে। খবর পাওয়া গেছে এ রোবটটির পেছনে কেন্দ্রীয় সরকার 28 কোটি টাকা ব্যয় করেছেন। কিডনি প্রতিস্থাপন থেকে শুরু করে রেনাল এবং ইউরোলজিক্যাল সমস্যা গুলিতে চিকিৎসার জন্য এই রোবটটির ভূমিকা অপরিসীম বলে জানানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে ইতিমধ্যে এই রোবটটি 25 জন রোগীর চিকিৎসা করেছে।

গত শনিবারেই নতুন প্রকল্পের উদ্বোধন করার পর সাফদারজং হাসপাতালের ইউরোলজি এবং রেনাল ট্রানস্প্লান্ট বিভাগের অধ্যাপক অনুপ কুমার বলেন,” রোবটিক্স এখনকার যুগে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। এটি গুরুতর অসুস্থ ক্যান্সার এবং কিডনি ব্যর্থ রোগীদের দুর্বলতা এবং এবং মৃত্যুর হার উল্লেখযোগ্যভাবে কমিয়ে এনেছে। এই রোবটিক চিকিৎসার ফলে রোগীরা অনেক সুবিধা পাবেন যেমন, চামড়ার বড় চিকিৎসা, রক্ত সঞ্চালন ছাড়াও আক্রমনাত্মক শল্যচিকিৎসা সহ সমস্ত কিছু সুবিধা পাবেন।”

কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে এই প্রকল্পের ফলে বহু দরিদ্র মানুষ বিনামূল্যে সুবিধা ভোগ করতে চলেছেন। এই রোবটিক চিকিৎসা সিস্টেমের ফলে রোগীদের অপেক্ষার তালিকাটি ক্রমশ হ্রাস পাবে। শুধু তাই নয় অপারেশনের সময়টিও হ্রাস পাবে বলে জানানো হয়েছে। যে পদ্ধতিতে এই চিকিৎসা হচ্ছে সেই পদ্ধতিতে বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করালে প্রায় 5-6 লক্ষ টাকা ব্যয় করতে হবে যা ভারতের দরিদ্র মানুষগুলোর পক্ষে অসম্ভব বলা চলে। এই প্রোগ্রামটি মাসে দুবার করে আয়োজন করা হবে বলে সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে। এবং এটি সারা দেশের মোট 52 টি মেডিকেল কলেজের সঙ্গে সংযুক্ত রয়েছে।

Related Articles

Close