একজনের ভুলের মাশুল গোটা ইন্ডাস্ট্রি কেন গুনবে! অর্পিতা কাণ্ডে মুখ খুললেন দেব সহ ঋতুপর্ণা

বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি অর্থাৎ টলিউডের হাত ধরে বহু অভিনেতা অভিনেত্রী সাফল্য অর্জন করেছেন। বর্তমানে এই টলিউডের সঙ্গে রাজনীতির একটি অভেদ্য সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। একদিকে যেমন বহু অভিনেতা অভিনেত্রী রাজনীতিতে যোগদান করেছেন তেমন অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মাননীয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টলিউডের বেশ কিছু অভিনেতা-অভিনেত্রী বিশেষত যারা রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত সেই সমস্ত অভিনেতা অভিনেত্রীদের মহানায়ক অথবা মহানায়িকা পুরস্কার সম্মানিত করেছেন।

এই টলিউড এবং রাজনীতি এতটাই সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছে যে, যখনই রাজ্য রাজনীতির প্রসঙ্গ আসে তখনই টলিউডের অভিনেতা অভিনেত্রীরা সরব হয়ে ওঠেন। সম্প্রতি শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত দুর্নীতি মামলায় রাজ্যের অপসারিত মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ মডেল অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে নিয়ে মুখ খুললেন অন্যতম অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত এবং অভিনেতা তথা সংসদ দেব।অর্পিতা মুখোপাধ্যায় যেহেতু টলিউডের একজন অভিনেত্রী তাই বারবার কাঠগড়ায় দাঁড় করাচ্ছেন সকলে আর এই ব্যাপারটি মেনে নিতে পারছেন না একাংশ অভিনেতা অভিনেত্রীরা।

অর্পিতা প্রসঙ্গে দেব অথবা ঋতুপর্ণা কেউ সরাসরি মন্তব্য না করলেও এই প্রসঙ্গে দেব বলেছেন, “আমি পার্থ চট্টোপাধ্যায় অথবা অর্পিতা মুখোপাধ্যায় কেউ নই। ওনারা কি করেছেন বা কি করছেন তা ওনারা ভালো বলতে পারবেন। আমি যা বলব হয়তো সেটা পক্ষে না হয় বিপক্ষে হবে তাই আমি এই বিষয় নিয়ে কোন মন্তব্য করবো না”।

অপরদিকে ঋতুপর্ণাও সাবধানতা অবলম্বন করে বলেন, “নিজের কাজের মাধ্যমে টলিউডের পরিচয় তৈরি করেছি আমি। এই টলিউডের সকলেই নিজের কাজের মাধ্যমে পরিচিত। একজন ব্যক্তি কি করল তাতে টলিউডের দুর্নাম কখনো হতে পারে না। একজন ব্যক্তি যদি টলিপাড়ার সুনাম মাটিতে মিশিয়ে দিতে চান সেটা কখনোই মেনে নেওয়া যায় না”।