উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য, সুশান্তের সই জাল করে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা আত্মসাৎ করতেন রিয়া..

প্রায় দু’মাস পেরিয়ে গেছে সুশান্ত সিং রাজপুতের চলে যাওয়া কিন্তু তার মৃত্যুকে ঘিরে আজও রয়েছে একাধিক রহস্য। আর এই বিষয়টিকে খতিয়ে দেখতে এর আগে একাধিক বার মুম্বাই পুলিশের তরফ থেকে জেরা করে বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে একাধিক মানুষের। তবে সুশান্তের মৃত্যুর পর রিয়া চক্রবর্তী ও পরিচালক মহেশ ভাটের কিছু ঘনিষ্ঠ ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয় আর তারপর থেকে অনেকেই বক্তব্য, পরিকল্পনা করেই সুশান্তকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেওয়ার পেছনে দায়ি রয়েছেন তারাই প্রকৃত পক্ষে।

 

শুধু তাই নয় এরপরেও অভিযোগ উঠতে শোনা যায় যেখানে সুশান্তের ফ্ল্যাট ছেড়ে দিয়ে সেখান থেকে চলে যাওয়ার নাকি পরামর্শ দিয়েছিলেন মহেশ ভাট। তবে এখন যে খবরটি বেরিয়ে আসছে সেই খবর অনুযায়ী জানতে পারা যাচ্ছে রিয়া চক্রবর্তী সুশান্তকে অবচেতন রেখে তার সই জাল করে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা সরিয়েছেন। বলে রাখি সম্প্রতি ইডির জেরাতে এমনটাই জানিয়েছেন সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার শ্রুতি মোদী।এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রতিবেদনে এমন তথ্য প্রকাশ এসেছে, তবে এখানেই শেষ নয় এর পাশাপাশি আরও জানা যাচ্ছে ইডির এই জেরাতে মুখ ভেঙ্গে পড়েন সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার এবং তিনি রিয়ার বিরুদ্ধে রাজসাক্ষী হতেও সম্মত হয়ে যান বলে জানা যাচ্ছে।

সূত্রের খবর, এই দিন ইডির জেরাতে সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার শ্রুতি মোদী আরো জানান প্রায় তিন মাস ধরে সুশান্তকে ওষুধ দিয়ে অচেতন করে রেখেছিলেন রিয়া।আর সেই সময় সুশান্তের সই নকল করে অভিনেতার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে বড় অঙ্কের টাকা সরিয়ে নিয়েছিল রিয়া। আর এরই মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে উঠে এসেছে কিছু তথ্য যেখানে জানানো যাচ্ছে সুশান্তের প্যান কার্ডের সই কোম্পানির বেশ কিছু কাগজপত্রে থাকা সই তার পুরনো কাগজপত্র থাকা সইয়ের সাথে কিছু সই মিলছে না।

প্রসঙ্গত যেমনটা আমরা জানি কিছুদিন আগেই অভিনেতার বাবা কে কে সিং, রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে আর্থিক টাকা পয়সা হেরফেরের অভিযোগ এনেছিলেন আর সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই তদন্ত করছে এই মুহূর্তে ইডি। যদিও পর্যন্ত এখনো পুরো বিষয়টি ইডির তদন্তাধীন রয়েছে তবে সুশান্তের মৃত্যু ঘটনায় সিবিআই, মুম্বাই পুলিশ, নাকী বিহারের পুলিশকে আগামী দিনে তদন্ত করা হবে সে বিষয়টি পুরোপুরি নির্ভর করছে সুপ্রিমকোর্টের রায়ের উপর।