মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রেপো রেটেই থাকবে নজর, এবার কতটা বাড়তে পারে EMI, জানুন বিস্তারিত

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সুদের হার বৃদ্ধি এবং ক্রমবর্ধমান মুদ্রাস্ফীতির পর ভারতীয় বিনিয়োগকারী এবং বাজার বিশ্লেষকরা, বর্তমানে দাঁড়িয়ে রয়েছেন ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংকের আসন্ন বৈঠকের দিকে। এই বৈঠক ২৮ থেকে ৩০ শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে। সভার শেষ দিন রিজার্ভ ব্যাংক রেপো রেট পরিবর্তনের হার ঘোষণা করে দেবে। মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণের জন্য আরবিআই সুদের হার বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নেবে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

একটি বেসরকারি সংবাদ সংস্থা রিপোর্ট অনুযায়ী, মুদ্রাস্ফীতি এবং অর্থনীতির উন্নতির বিষয়টি মাথায় রেখে রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া বিভিন্ন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতি অনুসরণ করতে পারে আগামী দিনে। মুদ্রাস্ফীতি মোকাবিলায় টানা চতুর্থবারের জন্য মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভ সুদের হার বাড়িয়ে দিয়েছে।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, আরবিআই মে মাস থেকে স্বল্প মেয়াদী ঋণের হার ১৪০ বেসিস পয়েন্ট বাড়িয়ে দিয়েছে। মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে এই হাড় আরো ৫০ বেসিস পয়েন্ট বাড়ানো যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এই হার ৫.৯% পর্যন্ত হতে পারে, যা গত তিন বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ।

এর আগে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ৪০ বেসিস পয়েন্ট বৃদ্ধি করেছিল। ফের জুন এবং আগস্ট মাসে ৫০ বেসিস পয়েন্ট বাড়ানো হয়েছিল। বর্তমান রেপো রেট ৫.৪ শতাংশতে দাঁড়িয়ে আছে। গত আগস্ট মাসের মুদ্রাস্ফীতি তথ্য সামনে আসার পর রিপোর্ট নিয়ে একটি জল্পনা কল্পনা শুরু হয়।

মে মাসের শুরুতে সিপিআই ডেটা মুদ্রাস্ফীতি কম হওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিল। আরবিআই দ্বি-মাসিক মুদ্রা নীতি প্রণয়নের সময় খুচরো মুদ্রাস্ফীতি বিবেচনা করে থাকেন। মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে ইউ এস ফেডও টানা তৃতীয়বারের মতো সুদের হার বাড়িয়েছে। অন্যদিকে বৃটেনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণের জন্য সুদের হার বৃদ্ধি করে দিয়েছে।

সংবাদ সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, ব্যাঙ্ক অফ বরোদার চিফ ইকোনোমিক্স মদন সাবনভিস বলেন, ভারতের মুদ্রাস্ফীতি প্রায় ৭ শতাংশের উচ্চতায় পৌঁছেছে বর্তমানে সেটি কমার কোন সম্ভাবনা নেই।