জুলাই মাস থেকে Debit and Credit কার্ড ব্যবহারে আসতে চলেছে নতুন নিয়ম, টোকেনাইজেশন করতে গেলে মানতে হবে পদ্ধতি

অনলাইনে কেনাকাটা করতে আমরা ভীষণ ভাবে অভ্যস্ত। কিন্তু এই অনলাইন কেনাকাটা শুরু হতে চলেছে নতুন একটি নিয়ম যা লাগু হতে চলেছে ১ জুলাই থেকে। অ্যামাজন, ফ্লিপকার্ট থেকে জোমেটো এবং সুইগীর মতো সংস্থা ক্রেতাদের কার্ডের বিবরণ নিজেদের কাছে সুরক্ষিত রেখে দেন। কিন্তু এই ব্যবস্থা আর থাকবে না। রিজার্ভ ব্যাংকের নির্দেশ অনুযায়ী আগামী ৩০ জুনের পর থেকে কোন অনলাইন সংস্থা গ্রাহকদের কার্ডের বিবরণ নিজেদের কাছে রেখে দিতে পারবেন না। যে সমস্ত তথ্য সংরক্ষণ করা আছে সেই সমস্ত তথ্য মুছে দিতে হবে সংশ্লিষ্ট দিনের আগে।

জুলাই থেকে অনলাইন কেনাকাটা করতে হবে টোকেনের মাধ্যমে। জামাকাপড় থেকে খাবার অর্ডার সবকিছুই এখন অনলাইনে অর্ডার করা হয় এবং দাম মিটিয়ে দেওয়া হয় অনলাইনে। ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলি সাধারণত নিজেদের কাছে গ্রাহকদের সমস্ত কাজের বিবরণ রেখে দেন তাড়াতাড়ি কেনাকাটা সম্পন্ন হয় বলেই। কিন্তু এতে তথ্য চুরির ঝুঁকি থেকে যায়। এখন রিজার্ভ ব্যাংক নির্দেশিত কার্ডের টোকেনাইজেশনের প্রযুক্তি অবলম্বন করলে সেই ঝুঁকি অনেকটাই এড়ানো যেতে পারে।

টোকেনাইজেশন কি?

রিজার্ভ ব্যাংক জানাচ্ছে, কেনাকাটা করার সময় third-party অ্যাপ থেকে গ্রাহকরা নিজেদের কারের সমস্ত বিবরণ বলে দেবার বদলে একটি বিকল্প কোড দেবেন। এই কোড হল একটি টোকেন। সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের তরফ থেকে গ্রাহকদের এই টোকেন প্রদান করা হবে। প্রতিটি কার্ডের বিকল্প হিসেবে আলাদা আলাদা টোকেন ব্যবহার করা হবে। এই টোকেন এর সাহায্যে সমস্ত কেনাকাটা হবে যাতে বিক্রেতা সংস্থা কোন কার্ডের তথ্য নিজেদের কাছে না রাখতে পারেন।

সম্প্রতি রিজার্ভ ব্যাংক একটি বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, ২০২২ সালের পয়লা জুলাই থেকে কার্ড প্রদানকারী এবং কার্ড ব্যবহারকারী ছাড়া লেনদেনের সঙ্গে অন্য কোনো তৃতীয় ব্যক্তি ব্যবহার অথবা সংরক্ষন করতে পারবেন না। তবে এর জন্য গ্রাহকদের কোন টাকা খরচ করতে হবে না। গ্রাহকরা কার্ড প্রদানকারী সংস্থা অথবা ব্যাংকের কাছে টোকেনের জন্য অনলাইনে অনুরোধ পাঠাতে পারবেন। টোকেনের মাধ্যমে কেনাকাটার বাকি সমস্ত নিয়ম একই থাকবে।