10 মাসের জায়গায় সৌরভকে 3 বছরের জন্য বোর্ড সভাপতি নিয়োগ করার তোড়জোড় শুরু

গত মাসেই ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী বিসিসিআই এর সভাপতি হন। এখনো পর্যন্ত প্রশাসক কমিটি অর্থাৎ সিওএ চালাচ্ছিল।(BCCI) বিসিসিআইয়ের বার্ষিকসাধারণ বৈঠক (এজিএম) এক ডিসেম্বর মুম্বাইতে হতে চলেছে। মুম্বাই বোর্ডের হেডকোয়ার্টারে এই মিটিং অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। এর জন্য সমস্ত রাজু অ্যাসোসিয়েশন গুলিকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কবে এবং কোথায় এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

বোর্ড প্রেসিডেন্টের চেয়ারে বসে একের পর এক বেনজির সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন সৌরভ। টেস্ট ক্রিকেটের গরিমা ফেরানোর জন্য দিন-রাতের টেস্ট ম্যাচ চালু করছেন। 22 তারিখ ইডেন গার্ডেন্সে দিন-রাতের টেস্টের গোলাপি বল গড়াবে। আইপিএল থেকে ছেঁটে ফেলা হয়েছে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। সৌরভ যদি তিন বছর চেয়ারে থাকেন, তা হলে এমনই সব বলিষ্ঠ সিদ্ধান্ত নিতে তাঁকে দেখা যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। পরিস্থিতি কোন দিকে গড়ায় সেটাই দেখার।

তবে সূত্রের খবর, মুম্বইয়ের সাধারণ সভার জন্য দেশের সমস্ত রাজ্যের ক্রিকেট সংস্থার কর্তাদের উপস্থিত থাকার জন্য নোটিস দিয়েছেন জয় শাহ।
কার্যত বোর্ড সভাপতি পদে 10 মাস থাকার কথা ছিল ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলীর। কিন্তু এখন খবর পাওয়া যাচ্ছে তিনি তিন বছর বোর্ডের সভাপতি পদে থাকতে পারবেন। 1লা ডিসেম্বর এই বৈঠকে ঠিক হবে সৌরভ গাঙ্গুলীর সভাপতি পদের মেয়াদ 3 বছর হবে কি না। বিসিসিআই সূত্রে জানা গিয়েছে, সৌরভকে বোর্ড প্রেসিডেন্ট এবং জয় শাহকে সচিব পদে বহাল রাখার জন্য বোর্ডের সংবিধান সংশোধন করা হবে এই বৈঠকে।

1লা ডিসেম্বর এই বৈঠক সৌরভের নেতৃত্বে হতে চলেছে। এই সাধারণ সভায় সব রাজ্যের ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান দের আসার কথা রয়েছে। একসময় ম্যাচ ফিক্সিং, বেটিং সহ একাধিক ইস্যুতে বিসিসিআই এর স্বচ্ছতা আনার জন্য নতুন সংবিধান রচনা করেছিল সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি আর এম লোধা নেতৃত্বাধীন কমিটি। এবার সেই সংবিধান কিভাবে সংশোধন করা হবে তা নিয়ে ওই বৈঠকে আলোচনা হতে চলেছে। আগের সংবিধানের নিয়ম অনুসারে, মরবা রাজ্য ক্রিকেট এসোসিয়েশনের কোন পদাধিকারী যদি পরপর টানা দুবার একই পদে থাকে তাহলে পরের দফায় বিসিসিআই এর কোনো নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন না তিনি।

এই নিয়ম অনুসারে, বোর্ড সভাপতি পদে সৌরভ গাঙ্গুলীর মাত্র 10 মাস সময় সীমা রয়েছে। 70 বছর বা তার থেকে বেশি বয়সী ব্যক্তির বোর্ডের পদাধিকারী ব্যক্তি হওয়ার নিয়েও আলোচনা হবে বলে জানা যাচ্ছে । সিআইবি সভাপতি পদে পরপর দুবার নির্বাচিত হয়েছেন সৌরভ গাঙ্গুলী। এই পদে থেকে টানা পাঁচ বছর দায়িত্ব সামলেছেন তিনি। এ বিষয়ে যদি সংবিধান সংশোধন করা হয় তার জন্য সুপ্রিম কোর্টের অনুমতি নেওয়া বাধ্যতামূলক।

Related Articles

Close