দল থেকে বাদ হল ধনী, তবে কী বিশ্বকাপে দেখা যাবে না ধনী কে?

পারফরম্যান্স কারোর নির্বাচন,কারোর সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করে না।একজন পারফর্মার কে চ্যালেঞ্জ করলে কী হতে পারে তা চোখে আঙুল দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন এম এস ডি।সবসময়ই একটি ক্রিকেটারের হয়ে কথা বলে তার ফ্রম তার পারফরম্যান্স। ভারতীয় ক্রিকেট টিমে একদিকে যেমনি বিরাট কোহলি অসামান্য পারফরম্যান্স দিয়ে এবং রেকর্ড ভাঙতে ভাঙতে যশ এবং খ্যাতিতে ভরে উঠছে তেমনি অসামান্য উইকেট কিপিং পারফরম্যান্স বাক ফিল্ডিং পারফরম্যান্স দিয়ে নিজের যোগ্যতা দেখিয়ে দিল মহেন্দ্র সিং ধোনি। ইতিমধ্যেই ভারতীয় দলে নির্বাচকরা টি-টোয়েন্টি টিম থেকে ধনী কে বাতিল করে দিয়েছে।ঠিক এমনই সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ওয়ানডে তে একটি দুর্ধর্ষ উইকেট কিপিং এ ক্যাচ নিয়ে নিজের ফিটনেস এবং পারফরম্যান্স দেখিয়ে দিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।পুনেতে হওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ভারতীয় টিমের এই খেলায় এই ক্যাচটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

এ দিন ভারতীয় ক্রিকেট দলের ক্যাপ্টেন বিরাট কোহলি টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়। ম্যাচের শুরু থেকেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওপেনাররা তেমন রান করতে পারেননি। তারপরেই ষষ্ঠ ওভারের পঞ্চম ডেলিভারিতে যাসপ্রীত বুমরার বাউন্সার বলে ঠিকঠাক হিট করতে না পেরে উইকেট হারায় চন্দ্রপল হেমরাজ।এই বলে চন্দ্রপল হেমরাজ ঠিকঠাক হিট করতে না পারায় বলটি আকাশের দিকে উঠে যায় তবে কেউ আশা করেনি যে এটি ক্যাচ হতে পারে কিন্তু যেখানে উইকেটকিপার মহেন্দ্র সিং ধোনি অর্থাৎ লেজেন্ড অফ উইকেট কিপিং সেখানে হয় না এমন কোন কথা নেই, প্রায় কুড়ি গজের বেশী দূরত্ব ছুটে গিয়ে ওই বলটি ক্যাচ করে মহেন্দ্র সিং ধোনি এবং উইকেট হারায় চন্দ্র পল হেমরাজ। এই ক্যাচ টি ধরার পরেই পুনের স্টেডিয়ামে ধোনি…ধোনি শব্দে ভরে ওঠে।

ম্যাচ চলাকালীন একটা সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজ 121 রানে 5 উইকেট হারায়। ম্যাচ এর মধ্যে হেড মেয়ার 37 রান করে এছাড়াও অনেকটা লড়াই চালান ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটসম্যান সাই হোপ। এই দুই ব্যাটসম্যান ছাড়া আর কোনো ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান তেমন কিছু করতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত হার মানতে হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। এই খেলায় ধনী নিজের জায়গা আরেকবার দেখিয়ে দিলেন সবাইকে। উইকেট এর পেছনের বেস্ট ফ্যাক্টর এখনো যে ধোনি তা এই দিনের ম্যাচে লক্ষ্য করা গেল।

Related Articles

Close