“রিমোট ভোটিং” সিস্টেম চালু করতে চলেছে নির্বাচন কমিশন,দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে দেওয়া যাবে ভোট

দেশের যে কোনো প্রান্তেই থাকুন, এবার থেকে ভোটের দিন নিজের কেন্দ্রে না থাকলেও ভোট দিতে পারবেন৷  ছুটে আসতে হবে না। কারণ ‘রিমোট ভোটিং’-এর বন্দোবস্ত করছে নির্বাচন কমিশন (Election Commission)। উন্নত প্রযুক্তিতে দ্রুত এর মহড়া শুরু হবে।

এই ‘রিমোট ভোটিং’ (Remote Voting) পরিকল্পনার কথা জানান মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা। 25 জানুয়ারি নির্বাচন কমিশনের প্রতিষ্ঠা দিবস। সেই উপলক্ষ্যে প্রতি বছর এই দিনটি জাতীয় ভোটার দিবস হিসাবে পালন করা হয়। ভোটার দিবসে এই প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেন অরোরা।

তিনি বলেন, “রিমোট ভোটিংয়ের বিষয়টি গবেষণার পর্যায়ে রয়েছে। আইআইটি মাদ্রাজ এবং আরও বেশ কিছু সংগঠন তাতে যুক্ত রয়েছে। অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে কাজ ভালোই এগোচ্ছে। খুব শীঘ্র এর মহড়াও শুরু হবে।”

পড়াশোনা, চিকিৎসা বা কাজের সূত্রে বাইরে থাকায় নির্বাচনে বহু  মানুষ ভোট দিতে পারে না৷ যে কেন্দ্রে নাম নথিভুক্ত রয়েছে, সেখানকার  বুথে গিয়েই ভোট দিতে হয়৷ এটাই এতদিন নিয়ম ছিল৷ তাই বিভিন্ন অসুবিধার জন্য ভোট দিতে আসা হয় না।

নির্বাচন কমিশনের তরফে চালু ডিজিটাল ভোটার-আইডি কার্ড, এবার থেকে

তাই কমিশনের এমন উদ্যোগ।  এই উদ্যোগ সফল হলে দেশের যে কোনো প্রান্তে বসে আপনি ভোট দিতে পারবেন৷  যে কোনো অঞ্চলের ভোটার ভোট দিতে পারবেন। কোনো ভোট নষ্ট হবে না৷ বা জায়গার জন্য আসতে না পারার কারণে ভোট দিতে চেয়েও দিতে পারবেন না এমন হবে না৷

কোভিড পরিস্থিতিতেই সম্প্রতি বিহারে নির্বাচন হয়েছে৷  কমিশন দায়িত্ব নিয়ে এই কাজ করেছেন । এতে ভালোই সাড়া মিলেছে। সমস্ত রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মানুষদের কারও দ্বারা প্রভাবিত না হয়ে নির্ভয়ে ভোট দিতে আসার আবেদন জানিয়েছেন অরোরা।

২০১৮ সালে যখন সি-ভিজিল অ্যাপ চালু করেছিল কমিশন তখন তার মাধ্যমে কোথাও নির্বাচনী বিধিভঙ্গ হলে,  কমিশনকে সরাসরি  রিপোর্ট করে জানাতে পারতেন সাধারণ মানুষ।  শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে এমন আরও বহু  পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানিয়েছে কমিশন।