অনলাইনে টাকা লেনদেনে জালিয়াতি রুখতে RBI নিয়ে আসছে নতুন প্রযুক্তি, কীভাবে কাজ করবে বিস্তারিত জানতে

বর্তমান সমাজ আজ যত উন্নত হয়েছে ঠিক সেরকমই বেড়ে গেছে ততই জালিয়াতির সংখ্যা। সমাজ যত এগোচ্ছে একই সাথে সমাজের নকল মানুষের সংখ্যাও দিন দিন বেড়ে চলেছে। প্রতিটা মুহুর্তে এখন মানুষকে সবসময় সচেতন থাকতে হয় যাতে কোন রকম জালিয়াতির হাতে না পড়ে তাকে সর্বশেষ হতে হয়। অনলাইনেই মূলত চলছে দিন রাত জালিয়াতির কাজ।

এটিএম-কার্ডের পিন নাম্বার হোক বা সিভিভি নাম্বার নিয়ে দুর্দার গতিতে চলছে জালিয়াতির কাজকর্ম। আর এই একটা দুর্দান্ত ভুলের জন্যই সাধারণ মানুষকে খোয়াতে হয় লাখ লাখ টাকা। কিছু ক্ষেত্রে টাকা উদ্ধার করা গেলেও বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই উদ্ধার করা সম্ভব হয় না টাকা। তাই বরাবর বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যাঙ্কের তরফ থেকে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে হয়।

তবে পরিস্থিতি সেভাবে কোনদিনই পরিবর্তন হয়নি। তাই এবারে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার তরফ থেকে একটি বিশেষ বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া উদ্যোগ নিয়েছে যাতে মানুষের টাকা খোয়াতে না হয়। এই প্রযুক্তির মাধ্যমে কিছুটা হলেও কম হবে মনে করা হচ্ছে।

প্রায় বেশিরভাগ সময়েই আমাদের সবার ফোনেই জালিয়াতেরা নিজেদের পরিচয় ব্যাঙ্কের কোন0 কর্মী হিসাবে, এই বিষয়ে যারা সরগড় তাদের পক্ষে অসুবিধার কারণ নেই কিন্তু যারা এই বিষয়ে জানে না তাদের উদ্দেশ্যে জালিয়াতেরা বড় সুযোগ পেয়ে যায়। তারা রীতিমত ভয় দেখাতে শুরু করে দেয় ব্যাক্তিদের। বিভিন্ন অছিলায় তাদের কার্ডের নাম্বার নিয়ে প্রতারকেরা লাখ লাখ টাকা তছরুফ করে।

এই সমস্যার সমাধানে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার পক্ষ থেকে নিয়ে আসা হল টোকেনাইজেশন পদ্ধতি। এই পদ্ধতি এতদিন শুধুমাত্র স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট যারা ব্যবহার করত তারাই এই সুযোগ পেত তবে এবার থেকে এই সুবিধা পাবে যারা ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ ব্যবহার করেন। এবার থেকে কার্ডের নিরাপত্তা বেশ জোরালো হবে আগের মত অত সহজে আর কার্ড অ্যাক্সেস করা যাবে না। ক্রেডিট কার্ড ও ডেভিড কার্ডের ক্ষেত্রে টোকেনাইজেশন প্রযুক্তি ব্যবহার করা যাবে।

পূর্বের কার্ড গুলোতে থাকে একটি সিসিডি নাম্বার, ও আলাদা আলাদা ডিটেইলস থাকে তবে টোকেনাইজেশন প্রযুক্তি অনুযায়ী এবার কার্ডে থাকবে না আর ডিটেইলস। থাকবে টোকেন। যে ক্ষেত্রে কার্ড থেকে টাকা পেমেন্ট করলেও জানা যাবে না ডিটেইলস। অর্থাৎ নতুন এই কার্ডের প্রযুক্তিতে কার্ডের ব্যাক্তিগত কোন রকম ডিটেইলস প্রকাশ পাবে না। এই প্রযুক্তির মাধ্যমে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া একটু হলেও মনে করছেন জালিয়াতির সংখ্যা কমানো যেতে পারে।