Categories
দেশ নতুন খবর বিশেষ

লকডাউনে আরও বড় ধাক্কা! এই ব্যাঙ্কের লাইসেন্স বাতিল করল RBI

দেশজুড়ে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে জারি রয়েছে লকডাউন আর এই লকডাউন আগামী 17 মে পর্যন্ত চলবে। আর এই লকডাউনের প্রভাব দেশের অর্থনীতি থেকে শুরু করে বিভিন্ন ব্যাংকিং বিভাগের উপরও পড়েছে। যার দরুন এবার RBI-এর তরফ থেকে বাতিল করে দেওয়া হল দেশের অন্যতম সমবায় ব্যাংকের লাইসেন্স। CKP কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কের লাইসেন্স বাতিল করে দিল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক।গতকাল অর্থাত্‍ শনিবারই এই কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কের লাইসেন্স বাতিল করে দেয় আরবিআই।

আপনাদের সুবিধার্থে বলে রাখি এই কো-অপারেটিভ ব্যাংক মুম্বাই অবস্থিত যা দেশের প্রাচীনতম ব্যাঙ্ক হিসাবেও পরিচিত। আর এই বিষয়ে RBI তরফ থেকে যে বিবৃতি জারি করা হয়েছে সেখানে জানানো হয়েছে এই ব্যাংকের বর্তমান আর্থিক অবস্থা অত্যন্ত খারাপ আর্থিক স্থিতিশীলতা ক্রমাগত কমে এসেছে দিনদিন।যার ফলে বিনিয়োগকারীদের এবং গ্রাহকদের নানা আর্থিক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে। এমনকি অন্য কোন ব্যাংকের সঙ্গে সংযুক্তিকরণ করেও এই ব্যাংকে বাঁচানোর কোন ভাল প্রস্তাব বা পরিকল্পনা নেই। এমন কী এই ব্যাঙ্কটি কে বাঁচানোর কোনও সদিচ্ছাও দেখা যাচ্ছে না ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের মধ্যেও। তবে এখানেই শেষ  নয় RBI-এর তরফ থেকে আরও জানানো হয়েছে এই ব্যাংকে যারা টাকা রেখেছেন বর্তমান ও ভবিষ্যতেও তাঁদের জমা টাকা ফেরত দেওয়ার মতো আর্থিক অবস্থায় নেই ব্যাঙ্কটি।অন্যদিকে আরবিআই- এর নিয়ম মেনে ন্যূনতম মূলধনও নেই। তাই এরকম এক পরিস্থিতিতে 1915 সালে স্থাপিত এই সমবায় ব্যাংকের লাইসেন্স বাতিল করার বিষয়ে সহমত হয়েছে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংক।

যদিও ব্যাংকে শেষ দিনগুলোতে সুদের পরিমাণ কে 2 শতাংশে কমিয়ে আনা হয়েছিল, আর সেই সময় লোকসানের পরিমাণ স্থিতিশীল অবস্থাতে এলেও বর্তমানে আর্থিক স্থিতিশীলতা এতটাই কম যে আমানতের 486 কোটি টাকা পরিষদের ক্ষমতা নেই এই ব্যাংক কর্তৃপক্ষের। তাই বর্তমানে ব্যাংকিং লাইসেন্স বাতিল হওয়ার পরে এই ব্যাংকে যারা টাকা রেখেছিলেন তাদেরকে RBI এর নিয়ম অনুযায়ী 5 লক্ষ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হতে পারে। কিন্তু তার বেশি অর্থ আমানতকারীদের দায়িত্ব রিজার্ভ ব্যাংক নিতে নারাজ। তবে এই বিষয়ে RBI  জানিয়েছে গ্রাহকদের স্বার্থ বিশেষভাবে গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।