“মেরা বাবা দেশ চালাতা হ্যায়”-এই ভিডিওটি পোস্ট করে নেটদুনিয়ায় মন জয় রতন টাটার..

গতকাল রতন টাটা তার ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেল একটি পোস্ট করেছেন যেটি দেখার পর পাবলিক সার্ভিস বিজ্ঞাপনের দুনিয়া বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে। রতন টাটার পোস্ট করা এই বিজ্ঞাপনটি একটি ভিডিও স্বরূপ যেখানে দেখা যাচ্ছে একটি ছেলে তার স্কুলের কোনো একটি প্রতিযোগিতায় তাঁর বাবার সম্পর্কে বর্ণনা দিচ্ছে। ছাত্রটি কবিতাটি শুরু করছে “মেরা বাবা দেশ চালাতা হে” বলে। আর তারপরই তাকে এ কথাও বলতেও শোনা যাচ্ছে যে তার বাবা কোন রাজনৈতিক নেতা, চিকিৎসক,পুলিশ বা সেনাবাহিনীর কাজে নিযুক্ত নন তবুও তিনি দেশের পরিচালনা করছেন।

এমন কী তার বাবা যদি এই কাজে না যান তাহলে দেশের প্রত্যেকটি বাড়ির কাজ থেমে যাবে এমনকি কেউ তাদের কর্মস্থলে পৌঁছাতে পারবে না।তারই সাথে ছেলেটিকে কথা বলতে শোনা যাচ্ছে যে তার বাবা যে কাজটি করেন সে কাজটি দেশের কোন বাবা করতে চান না। ভিডিও রেকর্ডিং এ দৃশ্যটি তখনই পরিবর্তিত হয়ে যায় যখন দেখানো হয় ছেলেটির বাবাটিকে, যেখানে ছেলেটির বাবা একজন সাফাই কর্মী হিসাবে কাজ করছেন। তারপরে ছাত্রটিকে একথা বলতে শোনা যায় বাবা নর্দমা এবং আবর্জনার ভিতরে ধোকেন,সে ক্ষেত্রে তার সবসময়ই ভয় থাকে তার বাবা হয়তো বাড়ি ফিরে আসবে না।

হয়তো এই কাজ করতে করতেই তার বাবা একদিন অসুস্থ হয়ে পড়বে। অবশেষে ছাত্রটি বলছে যে আমার বাবাকে বাঁচাও, একা আমার বাবার দ্বারা দেশ চালাবেন না কারণ একটি দেশ সেই দেশের প্রত্যেকটি নাগরিক দ্বারা পরিচালিত হয়। তবে এই ভিডিওটি দেশের জনগণকে সচেতন করার উদ্দেশ্যে তৈরি করা হয়েছে লক্ষ্য মিশন গরিমার অংশ হিসেবে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। আর এই মিশন গরিমা # TwoBinsLifeWins প্রচারের মাধ্যমে স্যানিটেশন কর্মীদের নিরাপদ পরিষ্কার কাজের পরিবেশ সরবরাহের নজরদারি করেছে।

যা নাগরিকদের এই পরিশ্রমী কর্মীদের কাজের ভার কমাতে সাহায্য করার জন্যই তাদের বায়ো- ডিগ্রেডেবল এবং নন বায়ো- ডিগ্রেডেবল বর্জ্য পদার্থ গুলিকে আলাদা করার ডাক দিয়েছে। রতন টাটা এই ভিডিওটির মাধ্যমে জানিয়েছেন মুম্বাইয়ে প্রায় 23 মিলিয়ন নাগরিক আছেন যেখানে 50,000 ব্যক্তি রয়েছে যারা এই স্যানিটেশন শ্রমিক বা মেথর হিসাবে কাজ করছেন। রতন টাটার শেয়ার করা এই ভিডিওটি একপ্রকার গোটা দুনিয়াকে বাকরুদ্ধ করে দিয়েছে।

Related Articles

Close