রাফায়েল তো সবে শুরু! ডিসেম্বরের মধ্যে আরও 83 টি তেজস যুদ্ধবিমান পাচ্ছে ভারতীয় বায়ুসেনা, চিন্তায় ঘুম উড়েছে শত্রুপক্ষের..

গত সপ্তাহে ভারতের ভূমি স্পর্শ করেছে রাফাল (Rafale)। এই অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান ফ্রান্সের কাছ থেকে কিনেছে ভারত। প্রথম ধাপের পাঁচটি বিমান পাঠিয়েছে ভারতে এরপর দ্বিতীয় ধাপে আরও কিছু বিমান পাঠাবে বলে জানিয়েছে ফ্রান্স। এই রাফেল আসার ফলে বায়ুসেনার সামরিক শক্তি কয়েকগুণ বেড়ে গেছে। এবার বায়ুসেনার সামরিক শক্তি আরও বাড়াতে খুব শীঘ্রই ভারতে আসতে চলেছে ‘তেজস’ (Tejas aircraft)। যুদ্ধবিমান এই “তেজস এয়ারক্রাফট” তৈরি করার জন্য হিন্দুস্তান অ্যারোনটিক্স সংস্থাটিকে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। মোট 39 কোটি টাকার চুক্তি হয়েছে ভারতের সাথে।

এই সবচেয়ে দ্রুতগামী ‘তেজস’ ফ্রান্সের তৈরি ‘রাফাল’ যুদ্ধবিমান এর মতো 9 টন এর কাছাকাছি ওজন বহন করতে সক্ষম। ভারতীয় বায়ুসেনা সূত্রে খবর পাওয়া গেছে যে, এবছরের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে বায়ু সেনার হাতে চলে আসবে তেজস এয়ারক্রাফট। এই দেশীয় সংস্থাটিকে মোট 83 টি তেজস যুদ্ধবিমান তৈরি করার জন্য বলা হয়। এই 83 টির মধ্যে 70 টি ফাইটার জেট এবং বাকি দশটি হলো দুই আসন বিশিষ্ট ট্রেনার ভেরিয়েন্ট। এ বিষয়ে ভারতীয় প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন যে, এই তেজস এয়ারক্রাফট সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি হবে এবং এর কার্যক্ষমতা অনেকটা রাফাল যুদ্ধবিমান এর মত হবে।

রাফালের মতো এই তেজস যুদ্ধবিমানটিও শত্রুপক্ষের নজরের বাইরে আঘাত হানতে সক্ষম থাকবে। এবং এই যুদ্ধ বিমানের গতি এতটাই দ্রুত যে এর পিছনে ধাওয়া করা শত্রুপক্ষের ক্ষেত্রে অসম্ভব হয়ে দাঁড়াবে। এই দ্রুতগতিসম্পন্ন তেজসে রয়েছে কম্পাউন্ড ডেল্টা উইং এবং 7 টা হার্ড পয়েন্ট। এছাড়াও আরো অন্যান্য আধুনিক ফিচার রয়েছে এর মধ্যে যেমন, হেলমেট মাউন্টেড সিস্টেম,  নাইট ভিশন, মাল্টিমোড রাডার, এছাড়াও রয়েছে বিয়ন্ড ভিজুয়াল রেঞ্জ মিসাইল ছোঁড়ার বিশেষ ব্যবস্থা। যেকোনো খারাপ থেকে খারাপ পরিস্থিতি হোক না কেন এই যুদ্ধ বিমান শত্রুপক্ষকে একেবারে ধ্বংস করে দেবে।

তাছাড়া সব রকম আবহাওয়াতে এই যুদ্ধবিমান কাজ করতে সক্ষম। এছাড়াও এই তেজস যুদ্ধবিমান কে আরো শক্তিশালী এবং খতরনাক করে তোলার জন্য এরমধ্যে ইজরায়েলি ডার্বি এবং রাশিয়ার ক্লোজ কম্বাট মিসাইল লাগানোর চিন্তাভাবনা চলছে। রাফাল ভারতে আসার পর থেকেই শত্রুপক্ষ বিশেষ করে চীন এবং পাকিস্তান নড়েচড়ে বসেছে। এমন কী পাকিস্তান তো ভারতকে থামানোর জন্য বিশ্ব দরবারে চলে গিয়েছে। এরপর ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে যদি তেজস যুদ্ধবিমান চলে আসে তাহলে ভারতের দিকে চোখ তুলে তাকাবার সাহস পাবেনা শত্রুপক্ষ।

Related Articles

Back to top button