আমাদের চলচ্চিত্র কেন দক্ষিনে চলে না! খানের এই প্রশ্নের উত্তর দিলেন RRR অভিনেতা রামচরণ

দক্ষিণ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির (South Industry) অন্যতম বিখ্যাত পরিচালক এস এস রাজামৌলি (SS Rajamouli) পরিচালিত সিনেমা ট্রিপল আর (RRR) ইতিমধ্যেই বক্স অফিসে নতুন করে ইতিহাস তৈরী করে ফেলেছে। এস এস রাজামৌলি পরিচালিত বাহুবলী সিনেমাটিও এর আগে কয়েক কোটি টাকার ব্যবসা করে ফেলেছিল। শুধু তাই নয়, দক্ষিণ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সিনেমা পুষ্পা থেকে শুরু করে কেজিএফ পর্যন্ত বক্সঅফিসে দুর্দান্ত ব্যবসা করেছে। বর্তমানে দক্ষিণ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির দিকে আমরা একটু বেশি আকর্ষিত হয়ে উঠেছি। এই আকর্ষণের পেছনে কী কারণ রয়েছে? কেন বলিউডের সিনেমা দক্ষিণের দেশগুলিতে চলে না? এই প্রশ্ন এবার তুলে ধরলেন স্বয়ং বলিউডের ভাইজান সালমান খান।


দক্ষিণ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির প্রত্যেক সিনেমা হিন্দিতে ডাবিং করে কোটি কোটি টাকার ব্যবসা করে ফেলেছে। শুধু তাই নয়, বিশ্বব্যাপী সিনেমাগুলি কোটি কোটি টাকার ব্যবসা করেছে ইতিমধ্যেই। কিন্তু বলিউড ইন্ডাস্ট্রি সিনেমা কেন দক্ষিণ দেশগুলিতে চলে না? কেন আমাদের হিন্দি চলচ্চিত্র কোটি কোটি টাকার ব্যবসা করতে পারে না? সর্বোপরি দক্ষিণ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে যেভাবে বলিউড তারকারা অভিনয় করতে শুরু করেছেন, তাতে করে বলিউডের ভবিষ্যৎ কি হবে তা নিয়ে ভীষণভাবে চিন্তিত সালমান খান।

সালমান খানের এই প্রশ্নের উত্তরে দক্ষিণের অন্যতম অভিনেতা রামচরণ বলেন, দক্ষিণ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির পরিচালকরা এমন একটি সিনেমা তৈরি করেন যা বিশ্বব্যাপী প্রত্যেকের জন্য উপযুক্ত হয়। সর্বোপরি দক্ষিণ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি সিনেমাগুলিতে ধার্মিক দিক গুলি তুলে ধরা হয়। প্রত্যেক পরিচালককে নিজের সিনেমা নিয়ে সর্বত্র প্রচারের উদ্দেশ্যে যেতে হবে। রাজ্যের বেড়াজাল মুছে ফেলে সর্বত্র নিজের সিনেমা প্রচারের জন্য যেতে হবে পরিচালকদের। তবেই একটি সিনেমা সর্বগ্রহণযোগ্য তৈরি হবে।

এছাড়াও রামচরণ বলেন, আমি অবশ্যই ভারতীয় সিনেমাতে অভিনয় করতে চাই। বলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে প্রচুর প্রতিভা রয়েছে। আমি চাই পরিচালকরা দক্ষিণ থেকে প্রতিভা খুঁজে বের করুন। বড় বাজেটের সিনেমা যদি সকলে মিলে তৈরি করা হয় তাহলে অবশ্যই সেটি কোটি কোটি টাকার ব্যবসা তৈরি করতে পারবে।

আপনাদের জানিয়ে রাখি সালমান খানের এই প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে কেজিএফ চলচ্চিত্রকে খ্যাত অভিনেতা যশ বলেন, আগে দক্ষিণ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সিনেমাগুলিকে এমন ভাবে ডাবিং করা হতো, সেগুলি সর্বগ্রহণযোগ্য হতো না। সকলে এই সিনেমাগুলি নিয়ে মজা করত। দক্ষিণ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি সিনেমাগুলোকে কেউ কখনো গুরুত্ব দিত না। কিন্তু এখন দক্ষিণ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির তৈরি করা গল্পগুলি মানুষ পছন্দ করতে শুরু করেছে। এগুলি রাতারাতি তৈরি হয়নি। আজ যে সফলতা অর্জন করেছে দক্ষিণ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি, তার পেছনে অবদান রয়েছে পরিচালক থেকে অভিনেতা সকলেরই।