রাম মন্দির নির্মাণের বিরোধিতায় আগামী 5 ই আগস্ট কালা দিবস পালন করবে পাকিস্তান…

ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে কী রকম সম্পর্ক তা বলার অপেক্ষা থাকেনা। একে বারে সাপে-নেউলে সম্পর্ক।কাশ্মীরকে দখল করার জন্য এর আগে পাকিস্তান বহুবার চেষ্টা করেছে কিন্তু সফল হতে পারেনি। যতবারই পাকিস্তানি সেনারা কাশ্মীর দখল করার চেষ্টা করেছে ততোবারই ভারতীয় সেনারা কড়া জবাব দিয়েছে তাদের। পাকিস্তান যে কাশ্মীর পাবে না তা তারা খুব ভালো করেই জানে। তাই পাকিস্তান দুধের স্বাদ ঘোলে মেটানোর চেষ্টা করছে। আর এই দুধের স্বাদ ঘোলে মেটাতে গিয়ে পাকিস্তান তাদের একটি জায়গার নাম রেখে দিয়েছে শ্রীনগর।

গত বছর 5 ই আগস্ট কাশ্মীর থেকে 370 ধারা তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্রীয় সরকার। অর্থাৎ আগামী 5 ই আগস্ট এক বছর পূর্তি হতে চলেছে। আর এর বিরোধিতা করার জন্য পাকিস্তানি সেনা ও পাকিস্তানী গোয়েন্দা বিভাগ ISI এর কয়েক পাতার কার্যক্রম জারি করে। অপরদিকে আবার কাশ্মীরের বিদেশ মন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি ইসলামাবাদের কাশ্মীরি হাইওয়ের নাম পরিবর্তন করে শ্রীনগর হাইওয়ে নাম রাখার জন্য ঘোষণা করেছেন। এছাড়াও তিনি আরও জানিয়েছেন যে, আমার গন্তব্য শ্রীনগর আর আমি বিশ্বাস করি যে এই হাইওয়ে আমাকে একদিন শ্রীনগর নিয়ে যাবেন।

তিনি বলেন যে আগামী 5 ই আগস্ট পাকিস্থানে কালা দিবস পালিত হবে। এই অনুষ্ঠান প্রত্যেক বছরই 5 ই আগস্ট পালন করার কথা ভাবছে পাকিস্তান। এদিন কাশ্মীর বাসীদের একতা নিয়েও তিনি বলেছেন।পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদের প্রধান রাস্তা হল কাশ্মীরি হাইওয়ে। এই হাইওয়ে পশ্চিম পাকিস্তানের ইন্টান্যাশনাল এয়ারপোর্টকে পূর্বের ই-75 হাইওয়ের সাথে যুক্ত করে। আর এটি 25 কিলোমিটার দীর্ঘ। FATF এর চাপ সৃষ্টি করার ফলে সন্ত্রাসবাদ বিরোধী আইনে সংশোধন করতে চলেছে পাকিস্তান। এ বিষয়ে পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রী কুরেশি জানিয়েছেন যে, ‘ সংসদে বিল পাস করিয়ে ভারতের সমস্ত পরিকল্পনায় জল ঢেলে দিয়েছে আমরা।

ভারত চাইছে FATF যেন পাকিস্তানকে ব্ল্যাকলিস্ট করে দেয়।’ তিনি এও জানান যে এখন পাকিস্তান চেষ্টা করছে FATF এর গ্রে লিস্ট থেকে যাতে পাকিস্তান উঠে যায়।অপরদিকে ভারতের মাটিতে রাফেল পা দেওয়ার পরেই পাকিস্তান ভয় খেয়ে গেছে। এতটাই ভয় পেয়ে গেছে যে পাকিস্তান ভারতকে থামানোর জন্য বিশ্ব মঞ্চের কাছে আবেদন করেছে। পাকিস্তানের দাবি যে ভারতকে এখন থামানো উচিত ওরা অনেক অস্ত্রশস্ত্র জোগাড় করে নিচ্ছে। এরপর পাকিস্তান যে ভারতের সাথে আর লাগতে আসবে না তা স্পষ্টভাবে বোঝা যাচ্ছে।