যে কাপড় দিয়ে তোমার সুট তৈরি সেই কাপড় দিয়ে ঘরের পর্দা বানাবো আমি, যখন অমিতাভকে সকলের সামনে অপমান করেছিলেন এই অভিনেতা

বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে অনেক তারকা এসেছেন এবং চলে গেছেন। কিন্তু তাঁদের মধ্যে এমন কিছু তারকা রয়েছেন যারা সারা জীবনের জন্য আমাদের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। আজ কথা বলব অভিনেতা রাজকুমারের, যিনি বহু সিনেমাতে অভিনয় না করলেও তাঁর মধ্যে এমন কিছু অভিনবত্ব ছিল, যার ফলে আমরা তাঁকে কোনদিন ভুলতে পারিনা। তাঁর অনবদ্য কথা স্টাইল থেকে শুরু করে তাঁর ফ্যাশন স্টেটমেন্ট, সবকিছুই ছিল নজরকাড়া। এই নজরকাড়া কথার জন্য অনেক সময় অনেকেই কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পরতেন।

আজ কথা বলব অমিতাভ বচ্চন এবং রাজকুমারকে সঙ্গে সম্পর্কিত এমন একটি ঘটনা, যা আমরা অনেকেই জানিনা। অমিতাভ বচ্চন একবার খুব বিলাস বহূল শুট পরে একটি পার্টিতে উপস্থিত হয়েছিলেন। এই পার্টিতে উপস্থিত হয়েছিলেন রাজকুমার। সবাই অমিতাভ বচ্চনের শুটের ভীষণভাবে প্রশংসা করেছিলেন এবং সকলের সঙ্গে রাজকুমারও অমিতাভ বচ্চনের প্রশংসা করলেন।

খুশিতে আত্মহারা হয়ে আমিতাভ বচ্চন যখন নিজের পোশাক সম্পর্কে কিছু বলতে যাবেন, তখন রাজকুমার বলে ওঠেন, “এমন একটি কাপড় দিয়ে আমাকে কিছু পর্দা বানাতে হবে। তুমি এই কাপড় কোথা থেকে কিনেছো”। রাজকুমারের কথার মধ্যে লুকিয়ে ছিল একটি চাপা বিদ্বেষ যার মানে হল, অমিতাভ বচ্চন যে পোশাকটি পরে রয়েছেন সেটিকে দেখলে পর্দার কাপড়ের মত। এতকিছুর পরেও অমিতাভ বচ্চন কোন কথা না বলে হেসে চলে যান সেখান থেকে।


একই অভিজ্ঞতা হয়েছিল অভিনেতা গোবিন্দার। ১৯৮৮ সালে যখন অভিনেতা রাজকুমারের সঙ্গে গোবিন্দা “জংবাজ” সিনেমাতে অভিনয় করেছিলেন তখন তাঁদের মধ্যে একটি বন্ধুত্ব তৈরি হয়েছিল। সকলের থেকে যে গোবিন্দার স্টাইল অনেকটাই আলাদা ছিল তা বোধ হয় সকলেরই জানা। শুটিংয়ের মাঝে একদিন গোবিন্দার দিকে তাকিয়ে রাজকুমার এমন একটি প্রশংসা করলেন,যাতে খুশি হয়ে গোবিন্দা তাঁর নিজের জামা খুলে দিলেন রাজকুমারকে।

সেই প্রশংসা কি ছিল তা জানা না গেলেও সেই শার্ট দিয়ে রাজকুমার পরের দিন রুমাল বানিয়ে ছিলেন এবং সেই রুমাল দিয়ে দিনে নাক পরিষ্কার করেছিলেন। রাজকুমারের এমন একটি আচরণ দেখে ভীষণ ভাবে বিস্মিত হয়ে যান গোবিন্দা। তবে তিনি রাজকুমারের মুখের উপর কোনো কথা বলেননি।

প্রসঙ্গত, সিনেমায় পদার্পণ করার আগে রাজকুমার একটি থানায় কাজ করতেন। রাজকুমারের কথা বলার স্টাইল এতটাই পছন্দ হয়েছিল বিখ্যাত পরিচালক বলদেব দুবের, যে তিনি “শাহিবাজার” সিনেমার জন্য রাজকুমারকে অভিনেতা হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন। তারপর থেকে অভিনেতার অভিনয় যাত্রা শুরু।