বাংলায় এসে মমতাকেই কড়া আক্রমণ রাহুলের, তৃণমূলকে ক্ষমতাচ্যুত করার ডাক..

মালদহের চাঁচলে সভা করতে এসে নরেন্দ্র মোদিকে যেমন কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী তেমনি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেও ছেড়ে কথা বলেননি তিনি। লোকসভা ভোটে এই রাজ্য থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ডাক দিয়েছেন এমনটা নয়, তিনি বাংলা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে সরানোর ডাক দিয়েছেন। কিছুদিন আগে পর্যন্ত বিজেপিকে ক্ষমতাচ্যুত করার জন্য কংগ্রেস সহ নানান বিরোধী দলগুলি একজোট হওয়ার কথা হচ্ছিল গোটা রাজনৈতিক মহলে। যদিও রাহুল গান্ধীর সাথে জোট করতে বারবার আপত্তি জানিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তা সত্ত্বেও দিল্লি থেকে মোদি সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চলছিল কংগ্রেস। এমনকি মমতার বিগ্রেডেও দূত পাঠিয়ে ইতিবাচক বার্তা দিয়েছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। কিন্তু তৃণমূলের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক গড়ে ওঠা নিয়ে বিরোধিতা ছিল প্রদেশ কংগ্রেসের। তৃণমূলের আগ্রাসী রাজনীতির জন্য রাজ্যের কংগ্রেস নেতারা রাহুল গান্ধীর কাছে বারবার অভিযোগ জানিয়েছেন। মালদহের এই সভা থেকে নরেন্দ্র মোদী এবং বিজেপি সরকার নিয়ে সমালোচনা করলেও তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে এবং তার সরকার তৃণমূল কংগ্রেসকে আক্রমণ করতে বেশি সময় নেই নি। যেহেতু রাজ্যে কংগ্রেস একা লড়ছে তাই দলের নেতাকর্মীদের মনোবল বাড়াতে মমতার বিরোধিতা করা ছাড়া রাহুল গান্ধীর আর কোন পথ ছিল না।এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। এই মালদহ একসময় কংগ্রেসের ঘাঁটি ছিল। ওখানকার সাংসদ মৌসম বেনজির নুরকে নিজেদের দলে টেনে এনে কংগ্রেসের বিপদ আরো বাড়িয়ে দেয় তৃণমূল।

এ রাজ্যের কংগ্রেস নেতা কর্মীরা শাসক দলের কাছে যেভাবে আক্রান্ত হচ্ছেন তা নিয়েও কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন রাহুল গান্ধী। তিনি শাসক দলের নানান উন্নয়ন নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। এমনকি তিনি সিপিএমের সঙ্গে তৃণমূলের তুলনা করে বলেন, ” বাংলার যুবসমাজকে বলছি,বছরের পর বছর সিপিএম বাংলাতে যা করে এসেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারও ঠিক তেমনটাই করছে। সিপিএমের আমলে দলের জন্য সরকার চলত, আর তৃণমূলের আমলে একজন ব্যক্তির জন্য সরকার চলছে।” এটা বলার অপেক্ষা রাখে না যে বাংলাতে কংগ্রেসের প্রধান প্রতিপক্ষ হল তৃণমূল। তবে রাহুল বলেন, তৃণমূলের সাথে বিরোধিতাকে শুধুমাত্র লোকসভা নির্বাচনের মধ্যে বেঁধে না রেখে আরও বড় লড়াই করতে। এ রাজ্যে বর্তমানে কংগ্রেসের অবস্থান দেখে অসম্ভব মনে হলেও বাংলায় ক্ষমতায় আসার জন্য ডাক দিয়েছেন রাহুল গান্ধী।

নিজেদের দলের কর্মীদের মনোবল শক্ত করতে তিনি বলেন, ” এখানে উন্নয়ন করতে চাইলে বাংলায় কংগ্রেস সরকার কে চাই। আমি সমস্ত কংগ্রেস কর্মীদের কথা দিচ্ছি, বাংলায় সরকার গঠন করার জন্য আমি আমার সর্বশক্তি দিয়ে লেগে পড়বো।” মৌসম বেনজির নুরের দলবদল করা কেন্দ্রীয় রাহুল গান্ধী তাকে আক্রমণ করেন। এ নিয়ে তিনি বলেন, লোকসভা নির্বাচনে প্রতারকদের শিক্ষা দেবে মালদহের সাধারণ মানুষ। রাহুল জানান,” সময় ভালো হোক বা খারাপ হোক এখানকার সাধারণ মানুষ সব সময় কংগ্রেসের পাশে থেকেছেন, এবং কংগ্রেসকে ভোট দেবেন। দিল্লিতে আমাদের সরকার ক্ষমতায় এলেও এ কথা আমি কোনদিন ভুলবো না। এটা রাজনৈতিক সম্পর্ক নয়, হৃদয়ের সম্পর্ক।

রাহুল গান্ধী মালদহের আম চাষিদের জন্য বলেন, ক্ষমতায় এলে আম চাষিদের জন্য আম বাগানের পাশেই আম প্রক্রিয়াকরণ গড়ার কথা বলেন। রাহুলের এই কড়া ভাষায় আক্রমণ কতটা কার্যকর হয় তা এখন দেখার বিষয়।