পাকিস্থানি সাংবাদিকের দাবি শাহিন আফ্রিদি ২০০ কোটি পাওয়ার যোগ্য, নেটিজেনরা বললো ঐ টাকায় পুরো পাকিস্তান কেনা যাবে

আইপিএল ২০২২ সালের নিলাম পর্ব শেষ হয়ে গেছে এবং সেই নিলাম অনুযায়ী ১০টি আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি দ্বারা খেলোয়াড়দের বাছাই করা হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে পাকিস্তানি সাংবাদিকরা দাবি করেন যে, পাকিস্তানি বোলার শাহিন আফ্রিদি এই নিলামে ২০০ কোটির প্রাপ্য, যার ফলে পাকিস্তানি সাংবাদিকরা খারাপভাবে ট্রোল হচ্ছেন।ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ২০২০ সংস্করণের জন্য সমস্ত দল তাদের স্কোয়াড প্রস্তুত করতে মোট ৫৫১.৭ কোটি টাকা ব্যয় করেছে।

মেগা নিলামে ভক্তরা বিডিং দেখার পাশাপাশি, কিছু বড় খেলোয়াড়কে কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজিতে জায়গা না পেতেও দেখেছেন। ভারতের একজন তরুণ ব্যাটসম্যান ঈশান কিষানকে সবচেয়ে বেশি দরে কেনা হয়েছে কারণ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স তাঁকে দলে ফেরার জন্য ১৫.২৫ কোটি টাকা দিয়েছে। ভারতীয় বোলার দীপক চাহারের জন্য একটি তীব্র বিডিং যুদ্ধ শুরু হয়েছিল, অবশেষে সিএসকে ১৪ কোটি টাকায় তাঁকে দলে ফিরিয়ে নেয়। শাহরুখ খানকে, পাঞ্জাব ৯ কোটি টাকায় কিনেছে।

রাহুল তেওতিয়াকেও, গুজরাট টাইটান্স একই পরিমাণ টাকায় কিনেছে। কেকেআর ৭.২৫ কোটি টাকা দিয়েছে শিবম মাভিকে, যেখানে ফাস্ট বোলার কার্তিক ত্যাগীকে নেওয়ার জন্য এসআরএইচ ৪ কোটি টাকা দিয়েছে। আভেশ খান আইপিএল নিলামের ইতিহাসে সবচেয়ে দামী আনক্যাপড খেলোয়াড় হয়ে ওঠেন, কারণ তাঁকে লখনউ সুপার জায়ান্টস ১০ কোটি টাকায় কিনেছিল।

আইপিএল ২০২২ মেগা নিলাম চুক্তিতে ভক্তদের প্রতিক্রিয়া নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ পাচ্ছে, এদিকে আইপিএল নিলাম নিয়ে বড় দাবি করায় পাকিস্তানি সাংবাদিক ইহতিশাম-উল-হক সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড হচ্ছেন। তিনি দাবি করেছেন, পাকিস্তানের বোলার শাহিন শাহ আফ্রিদি যদি আইপিএল ২০২২ সালের মেগা-নিলামে অংশগ্রহণ করলে তাঁর দর ২০০ কোটি টাকা হতো।

পাকিস্তানি সাংবাদিকের এই দাবি ভারতীয় ভক্তদের কাছে ভালো লাগেনি তাই তারা সেই পাকিস্তানি সাংবাদিককে ট্রোল করছে। এই বছরের শুরুতে, শাহীন শাহ আফ্রিদি ২০২১ সালের আইসিসি বর্ষসেরা পুরুষ ক্রিকেটার নির্বাচিত হন এবং গত বছরের ২৪শে অক্টোবর টিটোয়েন্টি বিশ্বকাপের টুর্নামেন্টে ভারতের বিপক্ষে তার স্পেলকে আইসিসি ‘গেম অফ দ্য টুর্নামেন্ট’ ঘোষণা করে।