আগামী দিনেও কোথায় কীভাবে চলবে লকডাউন, তা স্পষ্ট বুঝিয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

গোটা বিশ্ব জুড়ে চোখ রাঙাচ্ছে মরন ভাইরাস করোনা। দেশের ভিন্ন ভিন্ন রাজ্যের জেলাগুলিতে করোনা সংক্রমণের পরিস্থিতি কেমন তা খতিয়ে দেখতে গতকাল সোমবার দিন বেলা 11 টায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে 9 টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক হয়েছে। আর এই বৈঠকের দ্বারা বেরিয়ে এসেছে বড় ইঙ্গিত যেখানে জানতে পারা যাচ্ছে আগামী মে মাসের 3 তারিখে পর করোনা সংক্রমণের গ্ৰীন জোন নামে পরিচিত এলাকা এবং জেলাগুলিতে শুরু করা হতে পারে স্বাভাবিক জনজীবন।

এর পাশাপাশি হটস্পট বলে চিহ্নিত এলাকাগুলিতে লকডাউন এর মেয়াদ বাড়ানোর কথা ঘোষণা করেন। যার দরুন তিনি পাঁচটি রাজ্যের লকডাউনের মেয়াদ কালকে বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করেন। তবে আর দেরি না করে সেই পাঁচটি রাজ্যের নাম জেনে নিন যেগুলিতে আগামী 3 তারিখের পরও জারি থাকবে লকডাউন। এই পাঁচটি রাজ্যের তরফ থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আর্জি জানানো হয়েছে যাতে এই জায়গা গুলোতে লকডাউন না উঠানো হয় কারণ লকডাউন উঠে গেলেই আবার হটস্পট চিহ্নিত এলাকাগুলিতে সংক্রমনের মাত্রা অধিক মাত্রায় বেড়ে যেতে ফলে মানুষকে স্বাস্থ্য পরিষেবা দিতে পারবে না।

এই জায়গা গুলির নাম হল মহারাষ্ট্র, তেলেঙ্গানা, তামিলনাড়ু, কর্ণাটক,দিল্লি, ওড়িশা তাছাড়া এই মুহূর্তে এই জায়গা গুলোতে এরকমই সংক্রমনের মাত্রা অত্যাধিক হারে রয়েছে। তাই পরবর্তীকালে এই সংক্রমণের মাত্রা যাতে অধিক না হয়ে যায় তার জন্যই প্রধানমন্ত্রীর কাছে রাজ্যগুলি তরফ থেকে এরকম এক আর্জি জানানো হয়েছে।অন্যদিকে গতকালের এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তিনিও কাল নবান্নে স্পষ্ট ইঙ্গিত দিয়েছেন রাজ্যের তরফ থেকে এই লকডাউনের মেয়াদকে আগামী 21 শে মে পর্যন্ত বৃদ্ধির প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে, রাজ্যে যে এলাকা গুলি রেড জোন রয়েছে সেই এলাকাগুলিতে নেওয়া হবে এই প্রস্তুতি।

যেহেতু করোনা ভাইরাসের কারণে দেশজুড়ে জারি রয়েছে লকডাউন আর এই লকডাউনের ফলে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা পুরোপুরি বেসামাল রয়েছে।আর দেশের অর্থনীতির মধ্যে কিছুটা হলেও পরিবর্তন আনতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দ্বিতীয় দফার যে লকডাউন জারি হয়েছে সেখানে গত 20 এপ্রিলের পর থেকে কিছু শর্তসাপেক্ষ জায়গাগুলিতে ছাড় দিয়েছেন।এর পাশাপাশি তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন দেশের অর্থনীতির বিষয়টি মাথায় রেখেই ঠিক এই ভাবেই যুদ্ধটি আমাদের চালিয়ে যেতে হবে ভবিষ্যতেও। যেহেতু এখনো পর্যন্ত এই মরণ ভাইরাসের কোনো প্রতিষেধক তৈরি হয়নি সেহেতু মানুষকে সচেতন থাকার পাশাপাশি সবসময়ই মাস্ক পড়েই রাস্তায় বেরোনোর উপদেশ দিচ্ছেন তিনি। পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখারও পরামর্শও দিয়েছেন তিনি।

Related Articles

Close