যে কোনো সময় বিলুপ্ত হতে পারে ধারা 35A ও 370, NIT শ্রীনগরকে করা হলো অনিদৃষ্ট কালের জন্য সাসপেন্ড।

এটা বললে ভুল হবে না যে দেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এমন একজন নেতা যিনি কাউকে জানিয়ে কিছু করেন না। তা সে নোট বন্দি হোক কিংবা সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ই হোক কিংবা এয়ার স্ট্রাইক ই হোক না কেন সে ক্ষেত্রে যে পদক্ষেপগুলো নেওয়া হয়েছিল সেগুলি হঠাৎই নিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদি। তবে এখন যে খবরটি বেরিয়ে আসছে সেটি হলো জম্মু-কাশ্মীর কে নিয়ে এখন অনুমান করা হচ্ছে যে জম্মু কাশ্মীর থেকে ধারা 370 এবং 35A বিলুপ্ত করা হবে। রাষ্ট্রপতি যে কম সময় জম্মু-কাশ্মীর থেকে ধারা 35A ও 370 মুছে ফেলতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

আর এই ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সক্রিয় রয়েছেন তারা এর জন্য ফুল অ্যাকশন মুডে কাজও চালাচ্ছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় পাওয়া খবর অনুযায়ী জানতে পারা গেছে মেহেবুবা মুফাতিকে হাউস অ্যারেস্ট ও করা হয়েছে এর জন্য। আর এর জন্য জম্মু কাশ্মীরের অতিরিক্ত 38 হাজার সৈনিক কে নিযুক্ত করা হয়েছে। অন্যদিকে মেহবুবা মুফতি, ফারুক আব্দুল্লাহ ইত্যাদি নেতাদের সাথে বৈঠক করতে চেয়েছিল।

তবে মেহবুবা মুফতি কে পথেই আটকে দেওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর। শুধু তাই নয় শ্রীনগর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজিকে অনির্দিষ্টকালের জন্য সাসপেন্ড রাখা হয়েছে। এবং সেখানে থাকা জম্মুর হিন্দু ছাত্রদের জম্মুতে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে অনেকে। আর অন্যদিকে সরকারের তরফ থেকে কাশ্মীরের বেড়াতে যাওয়ার টুরিস্ট ও অমরনাথ যাত্রীদের ফিরে আসার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।জম্মুর প্রফেসর হরি ওম জানিয়েছেন, সরকার একশন মুডে রয়েছে এবং যেকোনো সময় রাষ্ট্রপতি ধারা 370 ও 35A মুছে ফেলতে পারে।আর এই বিষয়ে কাশ্মীরে কট্টরপন্থী নেতারাও সরকারের উদ্দেশ্য ধীরে ধীরে বুঝতে পেরেছে যার জন্য তারা মেহবুবা মুফতির সরকারের কাছে হাত জোড় করে অনুরোধ করছে এই ধারাগুলি বিলুপ্ত না করার জন্য।

তবে এখন এটা বলা বাহুল্য যে বেশ কয়েকদিন ধরে যে অনুমানটি করা হচ্ছিল জম্মু কাশ্মীর কে নিয়ে তা এখন বাস্তবায়নের হবার পথে এগিয়ে চলেছে।