Categories
নতুন খবর বিশেষ রাজনৈতিক

মমতাকে পিছনে ফেলে পশ্চিমবঙ্গে জনপ্রিয়তায় শীর্ষে উঠে এলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, জানাচ্ছে সমীক্ষা..

ভারতের করোনার সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তা। আর শুধু ভারতেই নয় সারা বিশ্বে জনপ্রিয়তার নিরিখে এগিয়ে আছেন আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি। এবার তিনি জনপ্রিয়তার নিরিখে পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেউ অনেকটা পিছনে ফেলে দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। এই সমীক্ষা রিপোর্ট আসার পর কার্যত তৃণমূলের ঘুম উড়ে গেছে। কারণ একুশের নির্বাচন আর বেশি দেরি নেই। বাংলায় এর আগে বিরোধী আন্দোলনে নেমে পড়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস।

এছাড়াও বিধানসভা উপনির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস নিজেদের ঘাঁটি শক্ত করছিল তৃণমূল। কিন্তু এর সমস্ত চেষ্টায় যেন সাধারণ মানুষের কাছে ব্যর্থ হয়ে গেল।রাজ্যবাসী এখন নামো কেই সবথেকে জনপ্রিয় নেতা বলে মনে করছেন। আইএনএস-সি ভোটার সমীক্ষায় এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে। গত বছরের ডিসেম্বর মাস থেকে সারা দেশজুড়ে বিরোধী আন্দোলন চলছিল। এই আন্দোলনে সামিল হয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমন কী সিএএ বিরোধী নিয়ে তিনি নিজে পথে নেমে মিছিল এর পড় মিছিল করেছেন।

কিন্তু বর্তমানে সিএএ বিরোধী আন্দোলন শিথিল হলেও মহা সংকটে রয়েছে দেশ। করোনার জেরে সমস্ত দিক থেকে পিছিয়ে পড়েছে আমাদের দেশ। কিন্তু বিরোধী দলগুলো আশা করেছিলেন এই সিএএ বিরোধী আন্দোলনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনপ্রিয়তা অনেকটাই কমে যাবে। কিন্তু সেই আশায় জল ঢেলে দেয় সাধারণ মানুষ। এই সমীক্ষায় দেখা গেছে সারা পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে মোট 64.06 শতাংশ মানুষ প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদীর কাজে সন্তুষ্ট আছে।

একই ছবি ধরা পড়েছে জম্মু-কাশ্মীরে। সেখানেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনপ্রিয়তা হু হু করে বাড়ছে। সেখানে মোট 50 শতাংশ মানুষ প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদীর কাজের উপর ভরসা করেন। হিমাচল প্রদেশে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনপ্রিয়তা 95% শতাংশ। যা একেবারেই চমকে দেওয়ার মতন সংখ্যা। যেখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রেটিং 52.06। বিরোধী রাজ্য ওড়িশার 90 শতাংশের ওপর রেটিং প্রধানমন্ত্রীর। এছাড়াও বিহারে প্রধানমন্ত্রীর যা জনপ্রিয়তা সেখানকার মুখ্যমন্ত্রীদের ছাড়িয়ে গেছে।

By The India Desk

Indian famous bengali portal, covers the breaking news, trending news, and many more. Email: [email protected]