দেশে ঘনীভূত হচ্ছে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ,তাই আবারও কাল সকাল ন’টায় সকল ভারতবাসীর জন্য গুরুত্বপূর্ণ মেসেজ দিতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী…

ফের আবার দেশবাসীর উদ্দেশ্যে নয়া বার্তা দিতে পারেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শুক্রবার সকাল 9 টার সময় বার্তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।এর আগে করোনাকে ঠেকানোর জন্য এক দিন জনতা কারফিউ এবং তার ঠিক পরে সারা দেশজুড়ে 21 দিনের লকডাউন ঘোষণা করেন।এখনো পর্যন্ত সেই লকডাউন চলছে সারা দেশ জুড়ে। লকডাউন ঘোষণা করার পরেও করোনাতে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। তাই দেশের এমন একটা কঠিন পরিস্থিতিতে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী কী বলবেন তার দিকে তাকিয়ে রয়েছে একাংশ।

এই 21 দিনের লকডাউন আরোও বড়ানো হতে পারে বলে জল্পনা তৈরি হয়েছে। তাই অনেকেই মনে করছেন প্রধানমন্ত্রী এই নিয়ে কিছু বলবেন এদিন।
চারিদিকের রিপোর্ট অনুযায়ী খবর আসছে, সারা দেশে লকডাউন জারি থাকার পরেও এটাকে অনেক হালকা ভাবে নিচ্ছেন। আর সেই কারণেই মোদী দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বার্তা দিতে পারেন বলে অনেকেই মনে করছেন। দিন কয়েক আগে নিজামুদ্দিনের ঘটনা সামনে এসেছে। সেখানে কমপক্ষে 9000 মানুষের জমায়েত ছিল বলে জানা গিয়েছে। আর তাদের মধ্যে অনেকেই করোনাতে আক্রান্ত ছিল।

আমাদের দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা 2000 ছাড়িয়েছে। রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। বৃহস্পতিবার করোনা নিয়ে রাজ্যের বিশেষজ্ঞ কমিটির তরফ থেকে জানানো হয়েছে, গত 24 ঘণ্টায় 104 জনের রিপোর্ট পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে 16 জনের শরীরে এই করোনাভাইরাস পজেটিভ পাওয়া যায়। অর্থাৎ রাজ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হলো 53 জন। এখনো পর্যন্ত রিপোর্ট পাওয়া গেছে 763 জনের এমনটাই বলেছেন চিকিৎসকদের বিশেষজ্ঞ কমিটি।

বুধবার নবান্নে এক সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান এ রাজ্যে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে করোনার ফলে। এই ঘোষণার 24 ঘন্টা পরে আরো 4 জনের মৃত্যু হয়। ফলে এ রাজ্যে করোনার জেরে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল 7 জন। এবং গত 24 ঘন্টায় কোনো করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরেনি বলেও জানানো হয়েছে। ফলের রাজ্যে এখনও পর্যন্ত মোট তিনজন করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে জিতে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এরাই হলেন রাজ্যের প্রথম তিনজন যারা করোনাতে আক্রান্ত হয়েছিলেন।