বিদ্যুৎ চুরি রুখতে এবার প্রত্যেক বাড়িতে বসতে চলেছে প্রিপেইড স্মার্ট মিটার

বিদ্যুতের অপচয় বন্ধ এবং গ্রাহকদের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ প্রক্রিয়া সহজ করতে সরকার দ্রুত প্রিপেইড মিটার স্থাপন কার্যক্রম সম্পন্ন করতে চলেছে। সরকার বলেছে এই প্রিপেইড মিটার হবে গ্রাহকবান্ধব।ভুতুড়ে বিল, সময় মত বিল না পাওয়া, বিল পরিশোধের নানা হয়রানির বিষয়গুলি আর থাকবে না। এছাড়া অগ্রিম টাকা দিয়ে বিদ্যুৎ ব্যবহার করতে হবে, যতটা বিদ্যুৎ আপনি খরচ করবেন ততটাই টাকা আপনাকে দিয়ে দিতে হবে, একরকম মোবাইল রিচার্জ এর মত।

আসুন জেনে নেওয়া যাক কীভাবে এই প্রিপেইড মিটার কাজ করবে। প্রিপেইড মিটার একদম প্রিপেইড মোবাইলের মত কাজ করবে। যতটা বিদ্যুৎ ব্যবহার সেইমতো টাকা। টাকা না দিলে লাইন থাকবে না। রিচার্জের মাধ্যমে এই পরিষেবা ব্যবহার করা যাবে। কেন্দ্রীয় সরকারি দফতরে, প্রি-পেইড মিটার স্থাপনের পর সারাদেশে বাস্তবায়িত হবে এমনটাই খবর সকল বিদ্যুৎ গ্রাহকদের বাড়িতে প্রিপেইড স্মার্ট মিটার বসানো যাবে। বিদ্যুৎ মন্ত্রকের মতে, আর্থিক স্থিতি আনার জন্যই এই প্রচেষ্টা। রাজ্যগুলির জন্য একটি মডেল হিসেবে কাজ করবে এই সংস্থা।

এই স্কিমের অধীনে, পর্যায় ক্রমে কৃষি ভোক্তাদের বাদে সকল বিদ্যুৎ গ্রাহকদের জন্য প্রিপেইড স্মার্ট মিটার এর ব্যবস্থা করা হবে। নগর এবং গ্রামীণ স্থানীয় সংস্থা এবং সরকারি বোর্ড এবং কর্পোরেশনসহ কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারের বিভাগে প্রিপেইড স্মার্ট মিটার স্থাপনের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। জানা যায়, বিভিন্ন এলাকায় প্রি-পেইড মিটার স্থাপন কার্যক্রম বন্ধ হলে বিদ্যুৎ সংযোগ যেহেতু চলমান প্রক্রিয়া,ফলে প্রি-পেইড মিটার স্থাপন কার্যক্রম একটি চলমান প্রক্রিয়া।

এই নতুন মিটারের মাধ্যমে নিশ্চিত করা হবে সরকারি বিভাগগুলি যাতে এর জন্য একটি নির্দিষ্ট আর্থিক বাজেট রাখে। এছাড়া অদূর ভবিষ্যতে কোন মিটার নষ্ট,খারাপ হওয়া বা ত্রুটি দেখা দিলে দ্রুত পরিবর্তন বা মেরামত করা যায়, সে চেষ্টা বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানি গুলির। বিদ্যুৎ পরিষেবাগুলি পাওয়ার জন্য এবং বকেয়া টাকার ঝক্কি মেটাতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিদ্যুৎ মন্ত্রক।