পোস্ট অফিসের নতুন স্কিম এবার থেকে 150 টাকা সেভিংসে পান 25 লক্ষ টাকা।

আমরা হয়তো অনেকে জানি যে ভারতে হেড পোস্ট অফিস ছাড়াও অন্যান্য সাব পোস্ট অফিস গুলিতেও পিপিএফ একাউন্ট খোলার ব্যবস্থা রয়েছে। আবার অনেকে হয়তো এই পিপিএফ এর একাউন্ট সম্বন্ধে সঠিক তথ্য জানে না। তবে যারা জানেন না পুরো খবরটি পড়ুন। এক্ষেত্রে 18 বছরের উপরে যে কোন ব্যক্তি এই অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন। আর একটা বিষয় হলো প্রাপ্তবয়স্ক নয় এমন বাড়ির সদস্যরা এই পিপিএফ একাউন্ট খুলতে পারেন। অর্থাৎ আপনি যদি চান যে আপনার সন্তানদের পিপিএফ একাউন্ট খোলাবেন তাহলে আপনি খোলাতে পারেন।আমরা সকলেই হয়তো এটাও জানি যে সাধারন একজন ব্যক্তি একটি মাত্র পিপিএফ একাউন্ট খোলাতে পারেন। অর্থাৎ যে কোন ব্যাংকে বা পোস্ট অফিসে একজন ব্যক্তির একটি মাত্র একাউন্ট খোলা যাবে। এই একাউন্টের এর সময়সীমা হয় 15 বছরের।

পিপিএফ একাউন্ট খোলার জন্য যে সমস্ত প্রয়োজনীয়  ডকুমেন্ট গুলি লাগবে-
পোস্ট অফিসে এই একাউন্ট খোলার জন্য আপনার সচিত্র প্রমাণপত্রসহ হিসেবে ভোটার কার্ড বা আধার কার্ড পাসপোর্ট বা ড্রাইভিং লাইসেন্স লাগে।এই একাউন্টের টাকা দেওয়ার সর্বোচ্চ এবং সর্বনিম্ন সীমা-
পিপিএফ একাউন্টে সর্বনিম্ন 500 টাকা দিয়ে খোলা হয়। এবং সর্বোচ্চ সীমা হলো 70,000 টাকা। আপনি আপনার পিপিএফ একাউন্টে এক বছরের সর্বোচ্চ দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত জমা দিতে পারেন এবং এক বছরে সর্বনিম্ন 500 টাকা জমা করতে পারেন।

এই অ্যাকাউন্টে সুদের পরিমাণ –

সরকারের তরফ থেকে বর্তমানে পোস্ট অফিসের পিপিএফ একাউন্ট গুলিতে সুদের হার হল 7.6 শতাংশ।

আয় করের ছাড় –
পোস্ট অফিসে আপনার পিপিএফ একাউন্ট এ যদি আপনি 1.5 লাখ বা তার উপরে টাকা রাখেন,তাহলে আপনাকে এর উপর কোন ট্যাক্স দিতে হবে না এটি সম্পূর্ণ করমুক্ত।

সাধারণ সঞ্জয়ের সঙ্গে পোস্ট অফিসের এই পিপিএফ একাউন্ট এর সঞ্জয়ের তুলনা –

আপনি যদি কোন ব্যবসা বা সরকারি বা বেসরকারি চাকরি করেন  আর যদি আপনার মাসিক বেতন পঁচিশ হাজার বা তার বেশি হয় তাহলে আপনি সমস্ত ঘর খরচ করার পর আপনার হাতে যে টাকা জমা হয় তা প্রায় 15 হাজার টাকার মতো। সঞ্জয়ের এই পরিমাণ যদি আপনি আপনার পিপিএফ একাউন্টে প্রতি মাসে জমা করতে পারেন এবং বছরে যদি 1.5 লক্ষ টাকার উপরে হয়, আর এই সঞ্চয় যদি আপনি 15 বছর পর্যন্ত চালাতে পারেন তাহলে আপনার সঞ্চয়ের পরিমাণ হবে 22.50 লক্ষ টাকা। তারপরে আপনি বছরে 7.6 শতাংশ সুদ পাবেন। তাহলে 15 বছরে আপনি মোট সুদ পাবেন 24.35 লক্ষ টাকা অর্থাৎ সুদ আর আসল মিলিয়ে আপনার মোট টাকা হবে 46.75 লক্ষ টাকা। আর এই টাকা আপনার ভবিষ্যতে অনেক কাজে আসবে।


এছাড়া আপনি যদি প্রতিদিন 150 টাকা করে জমা দেন তাহলে আপনার 15 বছরের সঞ্চয়ের পরিমাণ দাঁড়াবে 8 লক্ষ 10 হাজার টাকা। এর উপর আপনি 15 বছরে 7.6 হারে সুদ পাবেন 8.73 লক্ষ টাকা। আর সুদ আসল মিলিয়ে দাঁড়াবে 16.83 লক্ষ টাকা। এই টাকাটাও কিন্তু কোন অংশে কম নয়।
এছাড়াও আপনি যদি প্রতিদিন 100 টাকা করে জমা দিতে পারেন তাহলে আপনার বছরে 35 হাজার টাকা জমা পড়বে। আর এইটা কাটি যদি আপনি 15 বছর ধরে জমা দিতে পারেন তাহলে আপনার মোট টাকার সংখ্যা হবে 5.4 লক্ষ টাকা। আর এর উপর 15 বছরের সুদ ও আসল মিলিয়ে আপনার টাকার পরিমাণ হবে 11.22 লক্ষ টাকা। এবার আপনারা ভেবে দেখুন লাখপতি হওয়া কতটা সোজা।
এখান থেকে পরিষ্কার বুঝা যাচ্ছে লাখপতি হওয়ার সব থেকে ভালো এবং বিশ্বাসযোগ্য স্কিম হলো এই পিপিএফ এর  স্কিম টি। তাহলে আপনারা আর দেরি না করে আপনি আপনার নিকটবর্তি পোস্ট অফিসে যান এবং পিপিএফ এর একাউন্ট খুলে নিন এবং আপনার সাধ্যমত এখানে সঞ্চয় করুন।
পোস্টটি ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করুন আপনার প্রিয়জনদের সাথে এবং নিচে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করতে ভুলবেন না।