পাক অধিকৃত কাশ্মীরকে ভারতের অন্তর্ভুক্ত করায় আগামী পদক্ষেপ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একথা তিনি নিজে স্পষ্ট করে দিলেন

জম্মু-কাশ্মীর থেকে ধারা 370 কে বিলোপ করার পর থেকে এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগামী পদক্ষেপ হচ্ছে পাক অধিকৃত কাশ্মীরকে দখল করা।একথা তিনি তার জন্মদিনে গতকাল গুজরাটের কিবরিয়ার সভা থেকে তার কথায় ইঙ্গিত দিলেন।এদিন তিনি সেই সভা থেকে বলেন সর্দার বল্লভ ভাই প্যাটেল এর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে জম্মু-কাশ্মীরে কয়েক দশক পুরনো সমস্যার সমাধান করতে সফল হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

এদিন তিনি আরো বলেন যে সর্দার বল্লভ ভাই প্যাটেলের দূরদৃষ্টির জন্যই আজ হায়দরাবাদ ভারতের অংশ হয়েছে। প্রতি বছরের ন্যায় 17 ই সেপ্টেম্বর হায়দরাবাদে মুক্তি দিবস উদযাপন করা হয়। আপনাদের সুবিধার্থে বলে রাখি, 1948 সালে ওই দিনই ভারতের সঙ্গে বিলয় হয়েছিল হায়দরাবাদ।এরপরই তিনি জম্মু-কাশ্মীরের উদ্দেশ্যে বলেন এবার জম্মু- কাশ্মীরের উন্নয়নের কর্মযজ্ঞ শুরু হবে খুব তাড়াতাড়ি।

শুধু তাই নয় সেদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আরো বলেন যে, এক শ্রেষ্ঠ ভারত গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন সর্দার বল্লভ ভাই প্যাটেল কিন্তু তার থেকে জম্মু- কাশ্মীর ও লাদাখের মানুষেরা 70 বছর ধরে বঞ্চিত হয়েছে। তবে এবার থেকে আমি মনে করি যে জম্মু- কাশ্মীরের লক্ষাধিক মানুষ উন্নয়নের কাজকে তরাণ্বিত করবে তাদের উন্নতি সাধনে। তবে এর আগে দেশের বিদেশ মন্ত্রী জয়শঙ্কর প্রথমেই জানিয়েছিলেন যে, পাক অধিকৃত কাশ্মীর ভারতের অংশ যা আজ নয়তো কাল ভারতের সাথে যুক্ত হয়েই যাবে। ভারত নিজের অধিকার দখল করে নিবে।

অন্যদিকে কূটনৈতিক মহলের মতানুযায়ী যা জানতে পারা গেছে সেখানে বলা হচ্ছে জম্মু- কাশ্মীর থেকে পাকিস্তানকে দূরে রাখতেই পাক অধিকৃত কাশ্মীর নিয়ে পাল্টা চাপ সৃষ্টি করতে চলেছে ভারত।সিমলা চুক্তি নিয়ে যে পরবর্তীতে সে প্রতারণা পাকিস্তান বছরের-পর-বছর চালিয়ে গিয়েছে তার কথা এদিন স্পষ্ট বুঝিয়ে দিলেন জয়সঙ্কর। কয়েকদিন আগে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান কাশ্মীরের মোজাফফরের বাদে সভা করতে এসেছিলেন আর সেই সভাতেই সেখানকার মানুষের আওয়াজতুলে বলে”নিয়াজি গো ব্যাক”। কাশ্মীর বনেগা হিন্দুস্তান।’

Related Articles

Back to top button