এবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছে পাকিস্তানে সংখ্যালঘুদের ওপর হওয়া নির্মম অত্যাচারের কথা ফাঁস করল সে দেশেরই এনজিও..

অর্থনীতি ব্যবস্থা দিন দিন খারাপ হয়ে চলেছে,আর বারবার জঙ্গিদের মদদ দেওয়া নিয়ে আন্তর্জাতিক মঞ্চে ধাক্কা খেতে হচ্ছে তাদের। হ্যাঁ ঠিকিই ধরেছেন এখানে কথা বলা হচ্ছে পাকিস্তানের। এবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছে বেইজ্জত হতে হলো পাকিস্তানকে।এবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছে পাকিস্তানের সংখ্যালঘুদের উপর হওয়া অত্যাচারের কথা তুলে ধরল দেশের এক এনজিও। রাষ্ট্রসংঘের ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা বিষয়ক এক বৈঠকে পাক এনজিও হিউম্যান রাইটস ফোকাস-এর প্রধান দেশে সংখ্যালঘুদের ওপরে হওয়া অত্যাচারের কথা তুলে ধরেন।

এই দিন সংস্থার প্রেসিডেন্ট নাভিদ ওয়াল্টার বলেন, পাকিস্তানে ধর্মীয় সংখ্যালঘু হওয়ার কারণে পাকিস্তানে সংখ্যালুদের ওপরে নির্মম অত্যাচার করা হচ্ছে। তবে এখানেই শেষ নয় তিনি আরও বলেন পাকিস্তানে
আহমেদিয়াদের ওপরে অত্যাচার দিন দিন বেড়েই চলেছে। চিনে সংখ্যালুঘুদের ওপরে নির্যাতনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশের নিরাপত্তার কথা তুলে সংখ্যালঘুদের ধর্মীয় স্বাধীণতাকে কেড়ে নেওয়া হচ্ছে দুনিয়ার বিভিন্ন দেশে।

তবে আপনাদের আরো বলে রাখি 1994 সাল থেকে পাকিস্তানে মানবাধিকার রক্ষার কাজ করে চলেছেন নাভিদ ওয়াল্টার। তিনি দেশের সংখ্যালঘুদের স্বার্থ রক্ষার খাতিরে একটি সংগঠন গড়ে তুলেছেন যার নাম হিউম্যান রাইটস ফোকাস পাকিস্তান। নাভিদের সংখ্যালঘুদের ওপর এরকম অত্যাচারের মন্তব্য প্রকাশ করার পরই ক্ষোভ প্রকাশ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও কানাডার মত দেশ গুলি।এইদিন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি স্যাম ব্রাউনব্যাক বলেন, পাকিস্তানে বহুদিন ধরেই ধর্মীয় সংখ্যালঘুরা দমন পীড়নের শিকার। সেখানে যেসব সম্প্রদায়িক সংখ্যালঘু তা সে খ্রিষ্টান, আহমেদি ও হিন্দুই হোক না কেন তাদের উপর অত্যাচার দিন দিন বেড়ে চলেছে। এটা ভেবে নেওয়ার কোনও কারণ নেই যে দেশে যু্দ্ধ বিগ্রহ হলেই ধর্মীয় সংখ্যালঘুরা অত্যাচারের শিকার হন।


চিন উইঘুর মুসলিমরা, তিব্বতে বৌদ্ধরা ছাড়াও প্রটেস্টান ও ক্যাথোলিকরাও দুনিয়ার বিভিন্ন প্রান্তে অত্যাচারের শিকার।

Related Articles

Close