নেতারা AC রুমে থাকে, আমাদের সীমান্তে মরতে পাঠিয়ে দেয়, বেতন পর্যন্ত দেয় না: পাকিস্তানি সৈনিকের অডিও ভাইরাল।

বিগত বছরের তুলনায় ভারত এখন অনেক উন্নত , ভারতের সেনা দলের মধ্যেও অনেক নতুন নতুন পরিবর্তন এসেছে ,এখন ভারত আর পাকিস্তানের সেনাদের ভয় করেনা সন্ত্রাসবাদিদের ও ভয় করে না। এখন ভারত পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদি হামলাকেও পাল্টা জবাব দেয় এছাড়াও এখন ভারত আর পাকিস্তানের কোন হুমকিতেই ভয় পায় না। এখন ভারতের ওপর শুধু পাকিস্তান নয় যে দেশই আক্রমণ করবে ভারত তাকে দ্বিগুণ জবাব দেবে।

উদাহরণ হিসাবে বলা যেতে পারে, সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ,এয়ার স্ট্রাইক , বীজ ফায়ার এর নিয়ম ভঙ্গ করাই ভারত পাকিস্তানর বিরুদ্ধে এই লড়াই গুলি চালিয়েছে।এছাড়াও কিছুদিন আগে ভারতের কেন্দ্র সরকার কাশ্মীর থেকে ৩৭০ নং ধারাটি তুলে দিয়েছে এবং এতে সেখানকার সন্ত্রাসবাদীরা অত্যন্ত ক্ষুব্ধ কিন্তু ভারতের এতে কোন কিছু যায় আসে না। পাক সেনা এবং ইসলামিক সন্ত্রাসবাদীদের মধ্যে প্রচন্ড মতভেদ এবং বিদ্রোহ শুরু হয়েছে, এতে সেখানে পোস্টে থাকা পাকিস্তানি সেনারা কোনোভাবেই সন্তুষ্ট নয়।

তবে আপনাদের জানিয়ে দি যে পাকিস্তানি সেনাদের এরকম অসন্তুষ্টির কারণ হলো- ভারতের আগের তুলনায় অনেক বেশি উন্নতি, উন্নত যুদ্ধবিমান এবং পাকিস্তানি সেনার তুলনায় ভারতের সেনা দ্বিগুণ। পাকিস্তানের সেনাদের মৃত্যুর সংখ্যা দিনে দিনে বাড়ছে এই কারণে সন্ত্রাসবাদীদের সঙ্গে পাকিস্তানি সেনার বিরোধ দেখা যাচ্ছে। এমতাবস্থায় পাক সেনারা সরকারের উপর আক্রোশ প্রকাশ করতে শুরু করে দিয়েছে। পাকিস্তানের সীমান্ত থেকে এক সেনা পালিয়ে গিয়ে জানাই যে সে আর সরকারের এই চাকরি করতে রাজি নয়, সেই সঙ্গে তিনি একটি অডিও টেপ ও জারি করে সকল কে জানিয়েছেন যে,সীমায় তাদের বলপূর্বক সিজ ফাইয়ার উলঙ্গ করার নির্দেশ দেওয়া হয়।কিন্তু সরকারের লোকেরা AC রুমে ঘরে বসে থাকে আর আমাদেরকে পাঠিয়ে দেয় সীমায় যুদ্ধ করে মরতে।

পাকিস্তানের সেনাটি অডিও টেপ এর মাধ্যমেও জানায় পাকিস্তানের তুলনায় ভারতের সেনা অধিক এবং লড়াই জন্য তাদের কাছে অনেক যুদ্ধ বিমান রয়েছে, সেই তুলনায় পাকিস্তানের কাছে কিছুই নেই। সেই সঙ্গে তাদেরকে ঠিক সময়ে মাইনে দেওয়া হচ্ছে না এবং মাইনের পরিমাণ অত্যন্ত কম। পাকিস্তানি সৈনিক পাক সরকারের বিরুদ্ধে এবং সরকারি অনেক কর্মচারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে, এবং তিনি বলেছেন যে তিনি এই চাকরিটি ছেড়ে দেবেন।

Related Articles

Close