আশঙ্কায় পাকিস্তান! লোকসভা নির্বাচনের আগেই মোদি সরকার চালাতে পারেন সার্জিক্যাল স্ট্রাইক।

যেমন কি আপনারা সকলেই জানেন আগামী বছরেই শুরুতেই হতে চলেছে লোকসভা নির্বাচন। তাই সমস্ত দল এখন নিজে নিজের নির্বাচন কাজে লেগে পড়েছে। সব দল গুলি চাইছে তাদের নিজেদের দলকে সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরতে। আর এরই মধ্যে খবর আসছে যে লোকসভা নির্বাচনের আগেই সার্জিকাল স্ট্রাইক চালাতে পারে মোদি সরকার। এমনটাই আশঙ্কা করছে পাকিস্তানি রা।মূলত লোকসভা নির্বাচনের আগে ভোটারদের মধ্যে নিজের জনপ্রিয়তা কে বোঝায় রাখার জন্য সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালাতে পারেন মোদি সরকার এমনটাই আশঙ্কা জানিয়েছেন পাকিস্তান রেলমন্ত্রী শেখ রাশিদ।

রাশিদের আশঙ্কা অনুযায়ী বলা হয়েছে আগামী 2019 এর বছরটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভারতের কাছে বিশেষ করে এটি অতি বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে। তিনি আশঙ্কা করছেন যে ভোটারদের আকর্ষণ করার জন্য এই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করাতে পারেন  ও পাকিস্তানের সার্বভৌমত্ব ক্ষুন্ন করতে পারেন মোদি। যেমন কি আপনারা সকলেই জানেন 2016 সেপ্টেম্বরে উরি হামলার বদলা নিতে ভারতীয় সেনারা পাক অধিকৃত কাশ্মীরে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করেছিলেন।যার ফলে সুফল মিলেছিল ভারতীয় সেনাদের শেষ হয়েছিল বহু জঙ্গি, বেশ কয়েকটি জঙ্গির ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল।

হাফিজ সাইদ, মাসুদ আজহারেরমত পাকিস্থানে ঘাঁটি গোড়া সন্ত্রাসবাদীরা এর প্রতিশোধ নেয়ার জন্য চাপ দিয়ে চলেছে ক্রমশ পাকিস্তান সরকারকে। তবে বিজেপি সরকার অবশ্যই রাশিদের এই আশঙ্কা কড়া জবাব দিয়েছেন। শাহনওয়াজ হোসেন বলেছেন, সার্জিকাল স্ট্রাইক ভোটে জয়ের জন্য নয় পাকিস্তান কে উচিত শিক্ষা দেওয়ার জন্যই করা হয়েছিল, আর প্রয়োজন পড়লে তারা আবার তা করতে রাজি আছেন।

আরো এরকম নতুন নতুন খবরের আপডেট পেতে চোখ রাখুন আমাদের ওয়েব পোর্টালটিতে।