আমাদের সরকার মানবিক, তাই মাধ্যমিকের মতো উচ্চমাধ্যমিকেও সবাই পাস! বড় ঘোষণা শিক্ষা সংসদের

ইতিমধ্যেই রাজ্যের বেশিরভাগ স্কুলে শুরু হয়েছে উচ্চ মাধ্যমিক এর ফল প্রকাশ নিয়ে আন্দোলন, উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশ হতে না হতেই পরীক্ষার্থীদের মধ্যে শুরু হয়েছে বিশাল এক উত্তেজনা। ইতিমধ্যেই মাধ্যমিকের ফল প্রকাশ নিয়ে প্রচুর পরিমাণে জল্পনা কল্পনা হয়েছে রাজ্য জুড়ে। এবারে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশ নিয়ে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়। উচ্চ মাধ্যমিকে যে সব পরীক্ষার্থীকে উত্তীর্ণ করা হয়নি সেই সব পরীক্ষার্থী সবাই মিলে বিক্ষোভ শুরু করেন, গোটা রাজ্য জুড়ে কোথাও পথ অবরোধ করে কোথাও আবার স্কুল এর সামনে ভাঙচুর করে বিক্ষোভ দেখান হয়।

বিক্ষোভকারীদের দাবি যেখানে পরীক্ষা নেওয়া হয়নি সেখানে কি করে আমাদের ফেল করানো হল। এই অবস্থায় গোটা এলাকা জুড়ে বেশ উত্তেজনা ছড়ায়। এই দাবি নিয়ে বেশ মুশকিলে পড়েছে নবান্ন। সোমবার শিক্ষা সাংসদের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়েছে ৩১ শে জুলাই এর মধ্যে উচ্চ মাধ্যমিকের রেজাল্ট নিয়ে সমস্ত রকম জটিল্পতা দূর করতে হবে। আজ সাংবাদিক বৈঠকে মুখোমুখি হলেন উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতি মহুয়া দাস।

মহুয়া দাস সাংবাদিক বৈঠকে জানান ১০০ শতাংশ পরীক্ষার্থীকে উত্তীর্ণ করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন, এবং তিনি আরও বলেছেন, আমাদের সরকার মানবিক সরকার। এই সমস্ত পরীক্ষার্থীদের সকলকে উত্তীর্ণ করে দেবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এবারে উচ্চ মাধ্যমিকের পাশের হার ছিল ৯৭ শতাংশ। তার পর থেকেই শুরু হয় বিক্ষোভ এই আন্দোলনে জরুরি তলব দিয়ে ডেকে আনা হয় মহুয়া দাসকে নবান্নে। এই বিষয় নিয়ে খোদ মুখ্যসচিব নিজে এই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে নিজেই হস্তক্ষেপ করেছেন।

এই নতুন মূল্যায়ন পদ্ধতি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে, মহুয়া দাস জানান যথেষ্ট বিজ্ঞান সম্মত ভাবেই এই কাজ করা হয়েছে। সমস্ত দিক খতিয়ে দেখার পরেই তারপর পরীক্ষার্থীদের নাম্বার দেওয়া হয়েছে। এই সাংসদ সভাপতি জানিয়েছেন, অনেক পরীক্ষার্থীর প্রাপ্ত নম্বর এক সংখ্যাও পেরওনি। কেউ কেউ তো প্রাকটিক্যালে শূন্য পেয়েছে। তাই স্বাভাবিকভাবেই অনেককেই পাশ করানো যায়নি। তবে দেরিতে হলেও তাদের সকলকে পাশ করিয়ে দেওয়া হবে বলে সাংসদ সভাপতি জানিয়েছেন। তাতে কিছুটা হলেও আশ্বস্ত হয়েছে পড়ুয়ারা।