রাজ্যে রেশন বন্টনের দুর্নীতি রুখতে চালু করা হবে OTP ও বায়োমেট্রিক পদ্ধতিঃ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়..

রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে রেশন বন্টন কে নিয়ে একাধিক বার অভিযোগ উঠেছে। আর বিরোধীরা এক্ষেত্রে একুশে ভোটের অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করতে চাইছে রাজ্যের রেশন বন্টন প্রক্রিয়াকে। তাই এবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে রেশন বন্টন প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে কড়া পদ্ধতি অবলম্বন করতে চলেছেন এখানে তিনি জানিয়েছেন এই রেশন বণ্টনে স্বচ্ছতা আনতে এবার থেকে এসএমএস OTP অথবা বায়োমেট্রিক পদ্ধতি আনতে চলেছেন। আর তার জন্য ইতিমধ্যে সমস্ত রকম প্রক্রিয়া সেরে ফেলার নির্দেশও দিয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত যেমনটা দেখতে পাওয়া গেছে রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি চলাকালীন কিংবা আমফান পরিস্থিতি চলাকালীনই হোক না কেন রাজ্যে সব দলের নেতাদের বিরুদ্ধে রেশন বন্টনের প্রক্রিয়াকে নিয়ে একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। জেলায় জেলায় এই নিয়ে বিক্ষোভও প্রদর্শন হয়েছে, শুধু তাই নয় রেশন বন্টনের দুর্নীতি রুখতে একাধিকবার মুখ্যমন্ত্রীর তরফ থেকে বিবৃতি জারি করা হলেও একাধিক জায়গাতে জারি ছিল এই দুর্নীতি। ইতিমধ্যে ত্রাণ ও রেশন বন্টনের পদ্ধতি নিয়ে কড়া পদক্ষেপ করা হয়েছে শাসক দলের পক্ষ থেকে।

তবে এবার রাজ্যে কোথাও যাতে এই রেশন বন্টনের দুর্নীতি না হয় তার জন্য বায়োমেট্রিক পদ্ধতি কিংবা এসএমএস OTP এর মাধ্যমে করা হবে রেশন বণ্টনের সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারের। যার দরুন ইতিমধ্যে গ্রাহকদের আধার কার্ডের সাথে করা হয়েছে ডিজিটাল রেশন কার্ডের সংযুক্তিকরণ। আর যেহেতু আধার কার্ডের মধ্যেই রয়েছে মোবাইলের সংযুক্তিকরণ সেহেতু এবার মোবাইলে আসা ওটিপি দিলেই মিলবে উপযুক্ত রেশন। মোবাইল ওটিপি ছাড়াও এক্ষেত্রে রয়েছে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে রেশন তোলার প্রক্রিয়া।

প্রসঙ্গত যেমনটা আমরা জানি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এর আগেই ঘোষণা করেছেন আগামী নভেম্বর মাস পর্যন্ত দেশ জুড়ে দেওয়া হবে বিনামূল্যে রেশন আর তারপরই রাজ্য সরকারের তরফ থেকে বড় ঘোষণা করা হয় যেখানে তারা জানান আগামী বছরের 2021 এর জুন মাস পর্যন্ত দেওয়া হবে ফ্রি তে রেশন। তারপরই এই বিষয় নিয়ে বিরোধীরা শরব হন যেখানে মমতা সরকারের রেশন বন্টনের দুর্নীতির অভিযোগে আক্রমণ করতে এগিয়ে আসে সিপিএম, কংগ্রেস, বিজেপি। তবে এবার একুশের ভোটের আগেই বিরোধীপক্ষের মুখ বন্ধ করতে এরকম এক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের তরফ থেকে বলে মনে করা হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button