এখন বাড়িতে বসেই করতে পারবেন রঙিন ভোটার কার্ডের জন্য আবেদন, জেনে নিন পদ্ধতি…

উৎসবের পর এবার বাংলায় আগামী 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি তুঙ্গে। 21 এর নির্বাচনের আগেই নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে বাংলায় ভোটার কার্ডের তালিকার একটি খসড়া প্রকাশ করা হয়েছিল। যেখানে জানানো হয়েছিল চলতি বিধানসভায় বাংলায় মোট ভোটারের সংখ্যা রয়েছে 7 কোটি 18 লাখ 39 হাজার 380 জন। যাদের মধ্যে পুরুষ ভোটারের সংখ্যা রয়েছে প্রায় 3 কোটি 68 হাজার, যেখানে মহিলা ভোটারের সংখ্যা রয়েছে প্রায় 3 কোটি 52 লক্ষ, আর 1500 এর মতো রয়েছে তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার। আর এই তালিকা অনুযায়ী এই বছর নতুন করে প্রায় 39,176 জন ভোটারের নাম সংযুক্ত হয়েছে।

আর এখন যে সাদা কালোর জামানা চলে গিয়েছে, বর্তমানে একাধিক সরকারি কাগজ-পত্র এখন রঙ্গিন। আর এবার সেই রঙিন তালিকায় গতবছর ঢুকে পড়েছে ভোটার পরিচয় পত্রের নামও, যেখানে বাংলার মানুষও সেই রঙিন ভোটার কার্ড হাতে পেতে পারেন। আর এটি আগেকার মতো কোন সাদামাটা কাগজে ছাপিয়ে অ্যামিনেশন করা কার্ড নয় বরং এটি একটি প্যান কার্ডের মতো দেখতে ভোটার আইডি যেখানে রয়েছে পরিচয় পত্রের বারকোড। যাকে বলা হচ্ছে পলিভিনাইল ক্লোরাইড বা PVC কার্ড। সিন্থেটিক প্লাস্টিক পলিমারের তৈরি। তাই এই বছর বদলে ফেলুন বিধানসভা ভোটের আগেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড। তবে এবার এই যে নতুন কার্ডটি দেওয়া হচ্ছে সেটি কমিশন কর্তাদের মতে রয়েছে বেশ কিছু সুবিধা যেখানে প্রথমেই রয়েছে প্রযুক্তিগত সুবিধা, আর দ্বিতীয়তঃ রয়েছে এখানে বারকোড ও অদৃশ্য নম্বর যার ফলে পরিচয় পত্র আরো বেশি নিরাপদ হচ্ছে এক্ষেত্রে।

তাছাড়া এটি কমিশনের একটি তথ্যভান্ডার এ বিষয়ে চলে আসছে। তাই এখন যদি আপনার পুরনো ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে চান তাহলে সেক্ষেত্রে চলে আসছে নতুন প্লাস্টিকের ভোটার আইডি কার্ড। আর এবার জনগণের সুবিধার্থে বাড়িতে বসেই রঙিন ভোটার আইডি কার্ড তৈরি করার সুবিধা দেওয়া হচ্ছে এক্ষেত্রে আপনি বাড়িতে বসেই নতুন রঙিন ভোটের কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন।তবে এখন প্রশ্ন কীভাবে করতে পারবেন এই নতুন কালার ভোটার কার্ডের জন্য আবেদন এর জন্য আপনাকে প্রথমেই যেতে হবে নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইট www.nvsp.in তে।

যেখানে নতুন কার্ড তৈরি করতে একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে তারপর বয়সের শংসাপত্র এবং ঠিকানার প্রমাণপত্র, ছবি আপলোড করে দিতে হবে। এই ওয়েবসাইটে এই সমস্ত তথ্য গুলি একবার আপলোড করার পর এটিকে Send করে দিতে হবে, এক্ষেত্রে আপনি বয়সের প্রমাণপত্র জন্য দিতে পারেন জন্ম শংসাপত্র, অথবা মার্কশিট, পাসপোর্ট, প্যান কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স বা আধার কার্ড।আর ঠিকানা প্রমাণের জন্য দিতে হবে এক্ষেত্রে ব্যাঙ্ক পাস বুক কিংবা রেশন কার্ড বিদ্যুতের বিল কিংবা গ্যাস সংযোগের অনুলিপি কিংবা পাসপোর্ট।