একদিন গোটা কাশ্মীর আমাদের হবে, পাকিস্তানের চাপ বাড়িয়ে হুংকার ভারতীয় বায়ুসেনার

ভারত সরকারের পক্ষ থেকে কাশ্মীরে বাতিল করা হয়েছে বিশেষ ধারা। আর তারপর থেকেই ইমরান খানের প্রশাসন আন্তর্জাতিক মঞ্চে লাগাতার প্রস্তাব চালাচ্ছে এই ধারা বাতিল করার বিপক্ষে। তবে বারবার ব্যর্থ হলেও ভারতের বিরুদ্ধে বিষোদ্গার করতে পিছু পা হচ্ছেনা পাকিস্তান সরকার। চিরশত্রু পাকিস্তান বরাবরই ভারতের উপর দৃষ্টি নিক্ষেপ করে যাচ্ছে। তবে আন্তর্জাতিক মঞ্চে কাশ্মীর দখল প্রসঙ্গ বারবার উঠলে ভারতীয় বায়ুসেনা কর্তা অমিত দেব স্পষ্ট জানিয়ে দেন একদিন না একদিন পুরো পাকিস্তান ভারতের দখলে আসবে।

বহু কয়েক বছর ধরে কাশ্মীরে পাকিস্তান ক্ষমতা দখলের লড়াই লড়ে যাচ্ছে । বিভিন্ন সময়ে কাশ্মীর প্রেক্ষাপট তুলে ধরে জঙ্গি হামলা এবং যুদ্ধ চলছে দুই দেশের মধ্যে । সম্প্রতি গত ১৫ দিন ধরে পুঞ্চ জেলায় চলছে সেনা-জঙ্গি লড়াই। এছাড়া বদগাঁওয় সেনা সংঘর্ষ চলছে। সম্প্রতি হওয়া এই সংঘর্ষের জন্য এখনো পর্যন্ত প্রায় ১০ জন সেনা জওয়ান শহীদ হয়েছেন। তবে এর মধ্যে বেশকিছু পাকিস্তান মদতপুষ্ট সন্ত্রাসবাদিরও মৃত্যু হয়েছে।

সম্প্রতি এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে একটি সাংবাদিক সম্মেলনে ভারতীয় এ আর কমান্ডর এর প্রধান অমিত দেব বলেছেন,” বর্তমানে ভারতীয় বায়ুসেনা এবং স্থলসেনার সাথে আরও বিভিন্ন রকমের ক্ষুদ্র অভিযান যুক্ত হচ্ছে ,তার ফলে কাশ্মীরের সুরক্ষা আরো বাড়ছে । আশা করা যাচ্ছে কাশ্মীরের স্বাধীনতা রক্ষা পাবে। তিনি আরো বলেন, “আমি নিশ্চিত একদিন না একদিন পাক অধিকৃত কাশ্মীর এদিকের অংশের সাথে অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে এবং সমগ্র কাশ্মীর ভবিষ্যতে আমাদের হবে। ”

অনেকদিন ধরেই পাক অধিকৃত কাশ্মীর মুক্ত করার দাবি উঠেছে। এই জন্য ভারতীয় বায়ুসেনা এবং স্থলসেনাকে আরো নতুনভাবে ঢেলে সাজানো হয়েছে । পাকিস্তানের বিরুদ্ধে লড়ার জন্য শক্তিশালী করা হয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে। প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ৩৭০ ধারা বাতিলের পর পাক অধিকৃত কাশ্মীর মুক্ত করার কথাটি প্রথম উত্থাপন করেছিলেন। পাকিস্তান এবং কাশ্মীর এর ৩৭০ ধারার কথা বাতিল নিয়ে নয়, তিনি আলোচনার বিষয়বস্তু আনতে বলেছিলেন পাক অধিকৃত কাশ্মীর মুক্ত করার কথা আগে উত্থাপন করা উচিত।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী সাথে একই সুরে সুর মিলিয়েছেন বিদেশ মন্ত্রী ডক্টর এস জয়শঙ্কর। বেশ কিছুদিন আগেই পাকিস্তান ভারতের উপর নাশকতার ছক কষেছে। ভবিষ্যতে আরও বড় পদক্ষেপ নিতে পারে পাকিস্তান । কাশ্মীরের আতংকে দিন ফিরিয়ে দিতে পারে পাকিস্তান। ইতিমধ্যেই জেহাদীরা টার্গেট করছে হিন্দু এবং শিখদের। কিন্তু ভারতীয় সেনাবাহিনীতে সব রকম ভাবে তৈরি করা হচ্ছে পাকিস্তানের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে। পাকিস্তানি ষড়যন্ত্রকে ভেস্তে দিতে ভারতীয় সেনাবাহিনী এবং কাশ্মীর পুলিশ ও নেশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি কি তৈরি করা হবে। ইতিমধ্যে ১৭ জন সন্ত্রাসবাদীকে নিকাশ করা হয়েছে কাশ্মীর থেকে । এছাড়া চারজন সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে ।সব মিলিয়ে কাশ্মীরের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের ষড়যন্ত্রকে ভেস্তে দিতে ভারত অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে।