আবারও বেসরকারিকরণের পথে হাঁটতে চলেছে তিনটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক, সমস্যায় পড়তে পারেন গ্রাহকেরা

আবারো ভারতের তিনটি বড় রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক বেসরকারিকরণের পথে হাঁটতে চলেছে। নীতি আয়োগের তরফ থেকে সেন্ট্রাল ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া এবং ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাংকের অধিকাংশ শেয়ার বিক্রি করার পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারকে। নীতি আয়োগ কমিটি চাইছে সেন্ট্রাল ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া এবং ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাংকে বড় ধরনের বিলগ্নিকরনের পথে ধাবিত হোক কেন্দ্র সরকার। আর এর সাথে ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়াকে পুরোপুরি বিক্রি করে দেওয়ারও প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

 

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের শুরুতেই সাধারণ বাজেট পেশ করা হয়। এই বাজেট পেশ করতে গিয়ে ভারতের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ (Niramala Sitharaman) ভারতের চারটি মাঝারি মাপের ব্যাংককে বেসরকারিকরণের কথা বলা হয়। এই চারটি ব্যাংক হল ব্যাংক অফ মহারাষ্ট্র (Bank of Maharashtra), ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া (Bank of India), ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাংক এবং সেন্ট্রাল ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া (Central Bank of India)।

সোমবার এই প্রসঙ্গে নীতি আয়োগ কমিটি থেকে বলা হয়েছে ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাংক এবং সেন্ট্রাল ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার সমস্ত শেয়ার বিক্রি করার জন্য। অপরদিকে ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া কে পুরোপুরি বিক্রি করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এবার কেন্দ্রের বিনিয়োগ বিভাগ নীতি আয়োগের এই প্রস্তাবকে খতিয়ে দেখবে। এই প্রস্তাবগুলি কার্যকর করার জন্য কী কী আইনের ব্যবস্থা নেওয়া উচিত সেই বিষয়ে দেখা হবে। তারপর রিজাভ ব্যাংক নীতি আয়োগের এই প্রস্তাবে রাজি হলেই ওই ব্যাংকগুলিকে বেসরকারিকরণ করা হবে।

সরকারের এই প্রস্তাবের পরই বিরোধীরা তীব্র সমালোচনা করেছে কেন্দ্র সরকারের। তাদের মতে কেন্দ্র সরকার ভারতের সম্পত্তিকে বিক্রি করে দিচ্ছে। এই প্রসঙ্গে কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে ওই সমস্যাগুলোকে আরো বেশি করে কার্যকর করার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সরকারের বিরোধিতা করেছে ওই ব্যাংক কর্মী সংগঠনগুলিও। তাদের বক্তব্য কেন্দ্র সরকারের এই সিদ্ধান্তের প্রভাব পড়তে পারে বহু ব্যাংক কর্মচারীদের ভবিষ্যৎ জীবনের উপর। এক সূত্র মারফত জানা গিয়েছে বেসরকারিকরণের জন্য কেন্দ্র সরকার ছোট এবং মাঝারি মাপের ব্যাঙ্কগুলিকে বেছে নিয়েছে। তবে পরবর্তীকালে বেসরকারিকরণের জন্য অনেক বড় ব্যাংকেও বাছা হতে পারে।