আরো একবার রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে মুখ্য সচিবকে তলব রাজ্যপালের

রাজ্যে এক মাসের ওপর হয়ে গেছে বিধানসভা ভোটের ফলাফল ঘোষিত হয়েছে। এবার বিধানসভা ভোটে ২০০ টির বেশি আসন দখল করে তৃতীয়বারের জন্য রাজ্যের ক্ষমতায় এসেছে তৃণমূল সরকার। শত প্রচার সত্বেও বিজেপির ভাগ্যে ৭৭ টির বেশি আসন জোটেনি। এখন রাজ্যে মমতা বিরোধী হাওয়া তোলার জন্য শবর হয়েছে গোটা গেরুয়া শিবিরে। কয়েকদিন ধরে একটু মুখ বন্ধ রাখার পর রাজ্যের ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে আবারও সরব হয়ে উঠলেন রাজ্যপাল। পশ্চিমবঙ্গের ভেঙে পড়া আইনশৃঙ্খলা জবাব চাইতে গিয়ে রাজ্যের নতুন মুখ্যসচিবের কাছে তলব পাঠালেন রাজ্যপাল।

 

কয়েকদিন আগে রাজ্যের মুখ্য সচিব পদে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের মেয়াদ শেষ হয়। তিনি ওই পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পরে রাজ্যের মুখ্য সচিবের পদে অভিষিক্ত হন হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। আর গতকাল পশ্চিমবঙ্গের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে রাজভবনে তলব করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। এই সংবাদটি রাজ্যপাল নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে ট্যুইট করেছেন। ট্যাগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

ট্যুইট করতে গিয়ে রাজ্যপাল লিখেছেন, ‘রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থাও। আর এই কারণে আমি আগামী ৭ জুন রাজ্যের মুখ্যসচিবকে রাজভবনে ডেকেছি। সেখানে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে কথা হবে। ভোট পরবর্তী হিংসা ঠেকাতে রাজ্যের তরফ থেকে কী বন্দোবস্ত করা হয়েছে, সেটা জানতে চাই।”

রাজ্যে বিধানসভা ভোটের ফলাফল শেষ হওয়ার পর তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা বহু বিজেপি নেতাদের উপর অকথ্য অত্যাচার করছে। এই অত্যাচারের জেড়ে প্রাণ হারিয়েছে বেশ কয়েকজন গেরুয়া নেতা। ঘরছাড়া হয়েছেন বহু বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা। তাঁরা নিজের বাড়িতে ঢোকার জন্য দুষ্কৃতীদের ঘুষ দিতে বাধ্য হচ্ছে। এরকম পরিস্থিতির জন্য গেরুয়া শিবিরের পাশাপাশি রাজ্যপাল পশ্চিমবঙ্গের শাসক দলকে দুষছেন। রাজ্যের পুলিশ-প্রশাসন নিরপেক্ষ ভাবে কাজ করছে না। তারা তৃণমূলের হয়ে কাজ করছে। অবিলম্বে এই পরিস্থিতির বদল করার দাবি জানিয়েছেন রাজ্যপাল।